আউটসোর্সিং কী? কাকে বলে? একদম বিস্তারিত

বর্তমান বিশ্বে আউটসোর্সিং কাজের চাহিদা ব্যাপক বৃদ্ধি পেয়েছে।

বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশেও এর প্রভাব পড়েছে।

লাখ লাখ বেকার লোকের কর্মসংস্থানের মাদুম হিসেবে ইতিমধ্যে বাংলাদেশের শিক্ষিত যুবকদের একটি বিরাট একটি অংশ ফ্রিল্যান্সিং এর দিকে ঝুকে পড়েছে।

কেউ বা ফ্রিল্যান্সিং কে কাজের ফাঁকে ফাঁকে বাড়তি উপার্জন হিসেবে গ্রহণ করছে।

আবার কেউ বা পেশা হিসেবেই আউটসোর্সিং কে গ্রহণ করছে।

আউটসোর্সিং কি?

আউটসোর্সিং বা ফ্রিল্যান্সিং হলো ইন্টারনেট সেবা কাজে লাগিয়ে বাসায় বসে অন্যের কাজ করে দেওয়া কিংবা নিজের প্রোডাক্টগুলো ঘরে বসেই বিক্রি করে দেওয়া।

মূলতঃ ফ্রিল্যান্সিং কথাটির অর্থ ব্যাপক।

বর্তমানে আপনি ঘরে বসেই ইন্টারনেটের মাধ্যমে একজন আমেরিকান ব্যাক্তির অফিসের কিছু কাজ করে দিতে পারেন।

কাজের বিনিময়ে আমেরিকান ব্যাক্তিটি আপনাকে কিছু অর্থ পরিশোধ করবে যেটিকে ফ্রিল্যান্সিং ইনকাম বলে।

অর্থাৎ আপনার মেইন ইনকাম সোর্সের বাইরে আরেকটি ইনকাম।

ফ্রিল্যান্সিং- এ ইনকামের পদ্ধতিটাকেই সাধারণত আউটসোর্সিং বলে।

বর্তমানে এটি ছাড়াও নিজের তৈরি বিভিন্ন প্রোডাক্ট বা সেবা অনলাইনে বিক্রি করে অর্থ উপার্জন করার পদ্ধতিটি ফ্রিল্যান্সিংএর অন্তর্ভুক্ত।

আউটসোর্সিং এর মাধম্যে আয়ঃ-

আউটসোর্সিং এর মাধ্যমে কিভাবে আয় করা যায় তা নিয়ে অনেকেরই প্রশ্ন থাকে।

অনেকেই ফ্রিল্যান্সিং করে ইনকাম করার জন্য সঠিক গাইডলাইন পেয়ে থাকেন না ।

যার ফলে ফ্রিল্যান্সিং নিয়ে অনেকের কৌতুহল থাকলেও ফ্রিল্যান্সিং করে কিভাবে ইনকাম করতে হয় তা অজানাই থেকে যায়।

আউটসোর্সিং করে ইনকাম করতে চাইলে আপনাকে যেকোনো এক বা একাধিক বিষয়ে কাজ জানতে হবে।

নির্দিষ্ট কিছু ওয়েবসাইটে কাজের আবেদন করতে হবে।

আবেদনে সাড়া পেলে যথাসময়ে কাজ সম্পুর্ণ করে দিতে হবে। কাজ সম্পুর্ণ করলেই আপনি আপনার কাজের বিনিময়ে অর্থ পাবেন।
ফ্রিল্যান্সিং করে আয় করার এই তিনটি ধাপ অবশ্যই আপনাকে মানতে হবে।

পাশাপাশি মনে রাখতে হবে, শুধু কাজ জানলেই হবে না সেই সাথে আবেদন প্রক্রিয়াসহ আনুষঙ্গিক ব্যাপারগুলোও খুঁটিনাটি জানতে হবে।

আউটসোর্সিং কিভাবে শিখবোঃ

আউটসোর্সিং কিভাবে শিখবেন এওটি প্রায় সবার কমন প্রশ্ন।

এর উত্তর হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং শেখার তিনটি উপায় আছে।

আপনি তিনটি উপায়ের যেকোন একটি উপায় অবলম্বন করে ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ শিখতে পারেন।

তিনটি উপায় হলোঃ-
(১) কোন প্রতিষ্ঠানে আউটসোর্সিং কোর্স সম্পুর্ণ করা।
(২) ব্যাক্তিগত ভাবে কারও কাছে আউটসোর্সিং কাজ শেখা।
(৩) Youtube Video টিউটোরিয়াল দেখে শেখা।

প্রতিষ্ঠান বা ব্যাক্তির কাছে ফ্রিল্যান্সিং কাজ শেখার পূর্বে অবশ্যই প্রতিষ্ঠান বা ব্যাক্তির সম্পর্কে জেনে নিবেন।

অনেক ব্যাক্তি বা প্রতিষ্ঠান আছে যারা কাজের চেয়ে চাপ বেশি ছুড়েন। এদের পরিহার করুন।

আউটসোর্সিং কোর্সঃ-

এর জন্য বিভিন্ন কোর্স আছে। আপনি চাইলে যেকোন কোর্স সম্পুর্ণ করে ফ্রিল্যান্সিং শুরু করে দিতে পারেন।

কোর্সগুলো হলোঃ-

(১) এসইও (সার্চ ইঞ্জিন অপ্টিমাইজেশন)

(২)ওয়েব ডিজাইন

(৩)অটোক্যাড

(৪)গ্রাফিক্স ডিজাইন

(৫) ডিজিটাল মার্কেটিং

(৬)এনিমেশন ডিজাইন

(৭)ডাটা টাইপিং ইত্যাদি।

বাংলাদেশ থেকে মোটামুটি এসব ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ ই করা হয়।

তাছাড়া আপনি চাইলে ব্লগিং করেও অর্থ উপার্জন করতে পারেন যদি আপনার লেখালেখির অভিজ্ঞতা থাকে।

 

আউটসোর্সিং এর জন্য কোন কোর্সটি ভালো-

এক কথায় বলতে গেলে সকল কোর্সই ভালো।

আপনি যেকোন একটি কোর্স যদি ভালো করে আয়ত্ব করতে পারেন এবং দিনের পর দিন যদি আপনি স্কিলটাকে ডেভেলপ করতে পারেন তবে প্রত্যেক কোর্স থেকেই ভালো কিছু করতে পারবেন।

তবে তুলনামুলক ভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইনের চাহিদা অনেক বেশি থাকে এবং এই কোর্স থেকে ভালো পরিমাণ অর্থ আয় করা যায়।

যাদের সৃজনশীলতা কম এবং অল্প সময়ে ফ্রিল্যান্সিং করতে চান তাদের ক্ষেত্রে ওয়েব ডিজাইন কিংবা এসইও অথবা ডিজিটাল মার্কেটিং টা উপযুক্ত।

কেননা গ্রাফিক্স ডিজাইনের ক্ষেত্রে যেমন সময়ের প্রয়োজন তেমনি সৃজনশীলতারও প্রয়োজন।

আউটসোর্সিং নিয়োগঃ-

আউটসোর্সিং কাজ শেখার পর কোন প্রতিষ্ঠান চাকরির জন্য নিয়োগ দেয় কিনা তা প্রায় অনেকেই জানতে চান।

তাদের জন্য একটি ভালো খবর যে, বর্তমান সময়ে অনেক প্রতিষ্ঠান তাদের নানা ধরনের কাজ অনলাইনে করিয়ে নেওয়ার জন্য ফ্রিল্যান্সিং নিয়োগ দিয়ে থাকে।

অর্থাৎ এ সকল প্রতিষ্ঠান একটি নির্দিষ্ট অর্থের বিনিময়ে ফ্রীল্যান্সারদের কাজ দিয়ে থাকে।

ফ্রীল্যান্সাররা সেসব প্রতিষ্ঠানের কাজ ঘরে বসেই করে দেয়।

আউটসোর্সিং এর ওয়েবসাইটঃ-

আউটসোর্সিং কাজ করার বেশ কিছু ওয়েবসাইট আছে। এসব ওয়েবসাইট প্রতিদিন হাজার হাজার ফ্রীল্যান্সাররা কাজ করতে আসেন। আবার যারা প্রতিষ্ঠানের মালিক তারাও ফ্রীল্যান্সারদের খুঁজতে এসব ওয়েবসাইটে আসেন।

বর্তমানে বিশ্বে আউটসোর্সিং এর কাজের জন্য জনপ্রিয় ওয়েবসাইট গুলো হলোঃ-

(১) আপওয়ার্ক
(২) পিপল-পার-আওয়ার
(৩) ফীলান্সার
(৪)এনভাটো
(৫) ফাইবার

আরো বহুসংখ্যক ওয়েবসাইট আছে যেখানে আপনি ফ্রিল্যান্সিং এর কাজ করতে পারবেন তবে অবশ্যই মনে রাখতে হবে, সকল ওয়েবসাইটে পেমেন্টের গ্যারান্টি দেয় না।

যে সকল ওয়েবসাইট অত্যন্ত নির্ভরযোগ্য সেগুলো উপরে দেওয়া আছে।

ফ্রিল্যান্সিং কাজের ক্ষেত্রে বর্তমানে পৃথিবীর ৮০ শতাংশ ফ্রীন্যান্সার আপওয়ার্ক এবং এবং ফাইবার ব্যবহার করে থাকে।

মোবাইলে আউটসোর্সিংঃ-

একজন মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী তার ডিভাইস দিয়ে আউটসোর্সিং কাজ করতে পারবেন। তবে মোবাইল ফোন ব্যবহারকারী গ্রাফিক্স ডিজাইন কিংবা ওয়েব ডিজাইনের মত কাজ গুলো করতে পারবেন না।

মোবাইল ডিভাইস দিয়ে ছোটখাটো আউটসোর্সিং এর কাজ যেমন ডিজিটাল মার্কেটিং কিংবা এফিলিয়েট মার্কেটিং এর মতো কাজ গুলো করা যায়।
তবে একজন সফল ফ্রীল্যান্সার হতে চাইলে আপনার অবশ্যই একটি কম্পিউটার থাকতে হবে।

সুতরাং আউটসোর্সিং এর কাজ করতে চাইলে একটি কম্পিউটার কিনে ফেলুন অথবা আপনার বন্ধু বা আত্নীয়ের কম্পিউটার নিয়ে আপাতত শুরু করুন।

বাংলাদেশে এর সম্ভাবনা:-

আউটসোর্সিং এ বাংলাদেশের সম্ভাবনা প্রচুর। বিশ্বে ফ্রিল্যান্সিংএর শীর্ষে থাকা দেশগুলোর মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান উপরের দিকে।

প্রতি বছর হাজার হাজার বেকার তরুনী ফ্রিল্যান্সিং করে তাদের বেকারত্ব দূর করছে।

এতে যেমন একদিকে বাংলাদেশের বেকারত্ব দূর হচ্ছে তেমনি দেশের একটি বিশাল অংশ বাংলাদেশের রেমিট্যান্স বা বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে ভূমিকা রাখছে।

আগে বৈদেশিক মুদ্রা অর্জনে প্রবাসীদের ভূমিকা মুখ্য ছিলো এখন সেটি অনেকটাই কমে এসেছে।

অন্যান্য দেশে আউটসোর্সিং এর উপর ভ্যাট বা কর আরোপ করা হলেও বাংলাদেশে সেটি করা হয়নি।

ফলে একজন ফ্রীল্যান্সার (যিনি আউটসোর্সিং এর কাজ করেন) সহজেই বিনা ভ্যাটে আউটসোর্সিং করতে পারেন।

তবে বাংলাদেশ থেকে প্রধান যে সমস্যাটি পরিলক্ষিত হয় সেটি হলো, বাংলাদেশে পেপাল নাই।

এই সুবিধা না থাকায় একজন ফ্রীল্যান্সার পেমেন্ট পেতে গিয়ে ভোগান্তি পোহান।

তবে আগের তুলনায় বাংকিং পদ্ধতি উন্নত হুওয়ায় বাংকের মাধ্যমেই এখন ফ্রীল্যান্সাররা পেমেন্ট পেয়ে থাকে।

 

আমাদের অন্যান্য পোষ্টসমূহ:

BCS Preliminary: All Bcs Question, Answer and Solve.

IT solutions: Google Adsense Approval পাওয়ার করণীয়কম্পিউটারের  Speed  বাড়ানোর কিছু উপায়

Engineering: Solar cellsolar plant for 100 kW Installation, এসিতে বিদ্যুৎ খরচ কমানো যায় তার বিস্তারিত উপায়

Education: Importance of Reading NewspaperDuties of a Student Full Composition, ‍School Library

Biographies of famous peopleRabindranath TagoreProphet Muhammad (Sm)APJ Abdul Kalam



Latest articles

1 Comment

Leave a reply

Please enter your comment!
Please enter your name here

Related articles