Engineer's Solutions

The Site is Engineering and Science Related

৩৬ তম বিসিএস প্রিলিমিনারি টেস্ট

বিষয়ঃ বাংলা

. ‘বন্ধনশব্দের সঠিক অক্ষর বিন্যাস কোনটি?

(ক) ব+ন্+ধ+ন                (খ) বন্+ধন্

(গ) ব+ন্ধ+ন                     (ঘ) বান।+ধন্

 

উত্তর: () বন্+ধন্

ব্যাখ্যা: সাধারণ অর্থে অক্ষর বলতে বর্ণ বা হরফ (Letter)-কে বোঝালেও প্রকৃত অর্থে অক্ষর ও বর্ণ পরস্পরের প্রতিশব্দ বা সমার্থক শব্দ নয়। অক্ষর হচ্ছে বাগযন্ত্রের স্বল্পতম প্রয়াসে উচ্চারিত ধ্বনি বা ধ্বনিগুচ্ছ। আর বর্ণ বা হরফ হচ্ছে ধ্বনির চক্ষুগ্রাহ্য লিখিতরূপ বা ধ্বনি-নির্দেশক চিহ্ন বা প্রতীক। ইংরেজিতে আমরা যাকে Syllable বলে। অভিহিত করি, তাই অক্ষর। বাংলা ‘বন্ধন’ শব্দেও বন্+ধন্- এ দুটো অক্ষর। কিন্তু ব+ন্+ধ+ন- এগুলো অক্ষর নয়; এগুলো বর্ণ বা হরফ।

 

. বাংলা বর্ণমালায় অর্ধমাত্রার বর্ণ কয়টি?

(ক) ৭টি                          (খ) ৯টি

(গ) ১০টি                          (ঘ) ৮টি

 

উত্তর: () ৮টি

ব্যাখ্যা: বাংলা বর্ণমালায় অর্ধমাত্রার বর্ণ আটটি। যথা: ঋ, খ, গ, ণ, থ, ধ, প, শ; এবং মাত্রাহীন বর্ণ দশটি। যথা: এ, ঐ, ও, ঔ, ঙ, ঞ, ৎ, ং, ঃ, ঁ। এছাড়া পূর্ণমাত্রার বর্ণ ৩২টি।

 

. ‘বিজ্ঞানশব্দের যুক্তবর্ণের সঠিক রূপ কোনটি?

(ক) জ+ঞ                      (খ) ঞ+গ

(গ) ঞ+জ                       (ঘ) গ+ঞ

 

উত্তর: () +

ব্যাখ্যা: ‘বিজ্ঞান’ শব্দের যুক্তবর্ণের সঠিক রূপ: জ্+ঞ। এছাড়া এ যুক্ত বর্ণ দ্বারা গঠিত শব্দ: জ্ঞান, সংজ্ঞা ইত্যাদি।

 

. নিচের কোন শব্দটি প্রত্যয়যোগে গঠিত হয়নি?

(ক) সভাসদ                      (খ) শুভেচ্ছা

(গ) ফলবান                      (ঘ) তন্বী

 

উত্তর: () শুভেচ্ছা

ব্যাখ্যা: ‘শুভেচ্ছা’ শব্দটি সন্ধিসাধিত শব্দ। ‘অ’-কার কিংবা ‘আ’- কারের পর ‘ই’- কার কিংবা ‘ঈ’- থাকলে উভয়ে মিলে এ- কার ঞয়; যেমন: অ+ঈ= এ; শুভ+ইচ্ছা= শুভেচ্ছা। তন্বী (তনু+ ঈ) প্রত্যয় ও সন্ধি- উভয় সাধিত শব্দ। এছাড়া সভাসদ (সভা +সদ) ও ফলবান (ফল + বান) প্রত্যয়যোগে গঠিত।

 

. বহুব্রীহি সমাসবদ্ধ পদ কোনটি?

(ক) জনশ্রুতি                     (খ) অনমনীয়

(গ) খাসমহল                     (ঘ) তপোবন

 

উত্তর: () অনমনীয়

ব্যাখ্যা: জন দ্বারা শ্রুতি= জনশ্রতি (তৃতীয় তৎপুরুষ); তপের নিমিত্ত বন= তপোবন (চতুর্থ তৎপুরুষ); খাস যে মহল = খাসমহল (কর্মধারয়); নেই এমন যার = অনমনীয় (নঞ বহুব্রীহি সমাস)।

 

. নিচের কোনটি বিশেষ্য পদ?

(ক) জাত                         (খ) গৈরিক

(গ) উদ্ধত                         (ঘ) গাম্ভীর্য

 

উত্তর: () গাম্ভীর্য

ব্যাখ্যা: ‘জাত’ বিশেষণ পদটির অর্থ: জন্মেছে এমন; ‘গৈরিক’ বিশেষণবাচক পদটির অর্থ: গিরিমাটির বর্ণবিশিষ্ট; ‘উদ্ধত’ বিশেষণবাচক পদটির অর্থ: যার স্বভাবে বিনয়ের অভাব এবং ‘গাম্ভীর্য’ বিশেষ্যবাচক শব্দটির  অর্থ: গম্ভীরতা বা গম্ভীর ভাব।

 

. নিচের কোন শব্দে ণত্ব বিধি অনুসারে’- এর ব্যবহার হয়েছে?

(ক) কল্যাণ                      (খ) প্রবণ

(গ) নিক্কণ                                    (ঘ) বিপণি

 

উত্তর: () প্রবণ

ব্যাখ্যা: ‘কল্যাণ’, ‘নিক্কণ’ ও ‘বিপণি’- শব্দগুলো ‘ণ’- এর স্বভাবগত নিয়মে গঠিত হয়েছে। অন্যদিকে প্র, পরি, নির- এ তিনটি উপসর্গের পর ‘প’- বর্গের ৫টি (প, ফ, ব, ভ, ম) বর্ণ থাকলে তারপরে ‘ন’ ধ্বনি থাকলে তা মূর্ধন্য ‘ণ’ হয়। যেমন: প্রবণ, প্রমাণ ইত্যাদি।

 

.‘মিথ্যাবাদীকে সবাই পছন্দ করে’- বাক্যটিকে নেতিবাচক বাক্যে রূপান্তর করলে হয়

(ক) মিথ্যাবাদীকে সবাই পছন্দ করে                  (খ) মিথ্যাবাদীকে সবাই পছন্দ না করে পারে না

(গ) মিথ্যাবাদীকে কেই পছন্দ করে না                (ঘ) মিথ্যাবাদীকে কেই অপছন্দ করে না

 

উত্তর: () মিথ্যাবাদীকে কেই পছন্দ করে না

ব্যাখ্যা: না-সূচক বাক্যে না, নয়, নহে, নি, নেই, নাহি, নাই ইত্যাদি নঞর্থক অব্যয় ব্যবহার করতে হবে। না-বাচক ক্রিয়া ও না-বাচক অব্যয় মিলে বাক্যে দু’বার ব্যবহার করে অস্তিবাচক বা হ্যাঁ-সূচক ভাব বজায় রাখতে হবে। ‘মিথ্যাবাদীকে সবাই অপছন্দ করে’ বাক্যটির নেতিবাচক রূপ ‘মিথ্যাবাদীকে কেই পছন্দ করে না’।

 

. ‘Null and Void’- এর বাংলা পরিভাষা কী?

(ক) বাতিল                       (খ) পালাবদল

(গ) মামুলি                       (ঘ) নিরপেক্ষ

 

উত্তর: () বাতিল

ব্যাখ্যা: ‘Null and Void’- এর পরিভাষা হলো: ‘বাতিল’। অন্য option গুলোর মধ্যে পালাবদল- এর ইংরেজি পরিভাষা হচ্ছে by turns; মামুলি- trifling; এবং নিরপেক্ষ- neutral।

 

১০. ‘হেড মৌলভীকোন কোন ভাষার শব্দ যোগে গঠিত হয়েছে?

(ক) ইংরেজি+ফার্সি            (খ) ইংরেজি+আরবি

(গ) তুর্কি+ আরবি              (ঘ) ইংরেজি+ পর্তুগিজ

 

উত্তর: () ইংরেজি+ফার্সি

ব্যাখ্যা: যেসব শব্দ দেশি ও বিদেশি ভাষার সংমিশ্রণে কিংবা দুটি ভাষার দুটি শব্দের মিলনে গঠিত হয়, তাকে মিশ্র শব্দ বলে। যেমন: ‘হেডমৌলভী’ (ইংরেজি + ফারসি) দুটি শব্দের সমন্বয়ে গঠিত হয়েছে। এরকম আরও কিছু শব্দ হলো: হাটবাজার (বাংলা+ফারসি); চৌহদ্দি (ফারসি + আরবি); রাজা-বাদশা (তৎসম + ফারসি) ইত্যাদি।

 

১১. ‘রবীন্দ্র’- এর সঠিক সন্ধি বিচ্ছেদ কোনটি?

(ক) রবী + ইন্দ্র                 (খ) রবী+ ঈন্দ্র

(গ) রবি + ইন্দ্র                  (ঘ) রবি+ ঈন্দ্র

 

উত্তর: () রবি + ইন্দ্র

ব্যাখ্যা: ই-কার কিংবা ঈ-কারের পর : ই-কার কিংবা ঈ-কার থাকলে উভয় মিলে দীর্ঘ ‘ঈ’- কার হয়। দীর্ঘ ‘ঈ’- কার পূর্ববর্তী ব্যঞ্জনের সাথে যুক্ত হয়। যেমন: রবি + ইন্দ্র= রবীন্দ্র, অতি + ইত = অতীত, পরি+ ঈক্ষা= পরীক্ষা ইত্যাদি।

 

১২. ‘এ যে আমাদের চেনা লোক’- বাক্যেচেনাকোন পদ?

(ক) বিশেষ্য                     (খ) অব্যয়

(গ) উৎকর্ষ                       (ঘ) বিশেষণ

 

উত্তর: () বিশেষণ

ব্যাখ্যা: যে পদ দ্বারা বিশেষ্য, সর্বনাম ও ক্রিয়াপদের দোষ, গুণ, অবস্থা, সংখ্যা, পরিমাণ ইত্যাদি প্রকাশ করে তাকে বিশেষণ পদ বলে। এ বাক্যে ‘চেনা’ শব্দটি দ্বারা লোকটির পরিচিতি বা অবস্থা প্রকাশ করছে, তাই এটি বিশেষণ পদ।

 

১৩. ‘প্রকর্ষশব্দের সমার্থক শব্দ

(ক) উৎকর্ষতা                   (খ) অপকর্ষ

(গ) উৎকর্ষ                       (ঘ) অপকর্ষতা

 

উত্তর: () উৎকর্ষ

ব্যাখ্যা: ‘প্রকর্ষ’ বিশেষ্যবাচক শব্দটির সমার্থক শব্দ: উৎকর্ষ, শ্রেষ্ঠত্ব, উন্নতি।

 

১৪. কোনটি কাজী নজরুল ইসলামের রচনা নয়?

(ক) ছায়ানট                      (খ) চক্রবাক

(গ) রুদ্রমঙ্গল                     (ঘ) বালুচর

 

উত্তর: () বালুচর

ব্যাখ্যা: ‘বালুচর’ পল্লিকবি জসীমউদ্দীনের রচিত কাব্যগ্রন্থ। ‘ছায়ানট’ ও ‘চক্রবাক’ কাজী নজরূল ইসলাম রচিত কাব্যগ্রন্থ এবং ‘রুদ্রমঙ্গল’ তার রচিত প্রবন্ধ গ্রন্থ।

 

১৫. ‘সবুজপত্রপ্রকাশিত হয় কোন সালে?

(ক) ১৯০৯                        (খ) ১৯১০

(গ) ১৯১৪                         (ঘ) ১৯২১

 

উত্তর: () ১৯১৪

ব্যাখ্যা: প্রমথ চৌধুরীর সম্পদনায় ১৯১৪ সালে ‘সবুজপত্র’ পত্রিকা প্রকাশিত হয়। বাংলা গদ্যরীতির বিকাশে এ পত্রিকার গুরুত্ব অপরিসীম। এ পত্রিকাকে কেন্দ্র করে চলিত ভাষার একটি শক্তিশালী লেখকগোষ্ঠী গড়ে ওঠে।

 

১৬. মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক নাটক

(ক) সুবচন নির্বাসনে                        (খ) রক্তাক্ত প্রান্তরে

(গ) নূরলদীনের সারা জীবন                (ঘ) পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়

 

উত্তর: () পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়

ব্যাখ্যা: সৈয়দ শামসুল হক রচিত মুক্তিবিষয়ক কাব্যনাট্য ‘পায়ের আওয়াজ পাওয়া যায়।’ এটি মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক তার সর্বাধিক সার্থক ও মঞ্চসফল কাব্যনাটক। ‘নূরলদীনের সারা জীবন’ তার রচিত দ্বিতীয় কাব্যনাট্য। এটি ঐতিহাসিক ঘটনা ও চরিত্রের আলোকে রচিত। ‘সুবচন নির্বাসনে’ আবদুল্লাহ আল মামুন রচিত বিখ্যাত নাটক। ‘রক্তাক্ত প্রান্তরে’ মুনীর চৌধুরী রচিত প্রথম প্রকাশিত পূর্ণাঙ্গ নাটক।

 

১৭. কোনটি জসীমউদ্দীনের নাটক?

(ক) রাখালী                      (খ) মাটির কান্না

(গ) বেদের মেয়ে                 (ঘ) বোবা কাহিনী

 

উত্তর: () বেদের মেয়ে

ব্যাখ্যা: ‘রাখালী’ পল্লিকবি জসীমউদ্দীন রচিত প্রথম কাব্যগ্রন্থ। এছাড়া ‘মাটির কান্না’ তার আরেকটি বিখ্যাত কাব্যগ্রন্থ। ‘বোবাকাহিনী’ তার রচিত একমাত্র উপন্যাস। ‘বেদের মেয়ে’ জসীমউদ্দীনের বিখ্যাত লোকনাট্য।

 

১৮. মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যে কোন ধর্মপ্রচারকএর প্রভাব অপরিসীম?

(ক) শ্রীচৈতন্যদেব               (খ) শ্রীকৃষ্ণ

(গ) আদিনাথ                     (ঘ) মনোহর দাশ

 

উত্তর: () শ্রীচৈতন্যদেব

ব্যাখ্যা: মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যে শ্রীচৈতন্যদেবের প্রভাব অপরিসীম। চৈতন্যদেব বাল্যকাল থেকেই কবিতা ও সঙ্গীতপ্রিয় ছিলেন। এসব ভাবগত গানের দ্বারা তার মনে ভক্তি ভাবের উন্মেষ ঘটে। তিনি প্রচার করলেন ‘জীবে দয়া ঈশ্বরে ভক্তি বিশেষ করে নামধর্ম, নাম সংকীর্তন’। তার কল্যাণেই  বাঙালির স্বাজাত্যবোধ ও নিজস্ব সংস্কৃতি রক্ষিত হয়। চৈতন্যদেবের আবির্ভাব কেবল ধর্ম ও সামাজিক ক্ষেত্রে নয়, বাংলা সাহিত্যের অঙ্গনেও এক বৈপ্লবিক ঘটনা। চৈতন্যদেবের বৈষ্ণবতত্ত্বকে অবলম্নন করে বৈষ্ণব কবিরা রচনা করে পদাবলী গান।

 

১৯. মুনীর চৌধুরীর অনূদিত নাটক কোনটি?

(ক) কবর                                    (খ) চিঠি

(গ) রক্তাক্ত প্রান্তরে              (ঘ) মুখরা রমণী বশীকরণ

 

উত্তর: () মুখরা রমণী বশীকরণ

ব্যাখ্যা: শেক্সপিয়রের ‘টেমিং অব দ্য শ্রু’ নাটকের অনুবাদ করে মুনীর চৌধুরী রচনা করেন ‘মুখরা রমণী বশীকরণ’। এছাড়াও তার রচিত ‘কবর’ ভাষা আন্দোলনভিত্তিক, ‘রক্তাক্ত প্রান্তরে’ পানিপথের তৃতীয় (১৭৬১) যুদ্ধ এবং ‘চিঠি’ নাটকটি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের একটা বিশেষ সময়কে ভিত্তি করে রচিত হয়েছে।

 

২০. কোনটি উপন্যাস নয়?

(ক) দিবারাত্রির কাব্য                       (খ) হাঁসুলী বাঁকের উপকথা

(গ) কবিতার কথা                           (ঘ) পথের পাঁচালী

 

উত্তর: () কবিতার কথা

ব্যাখ্যা: ‘কবিতার কথা’ জীবনানন্দ দাশ  রচিত একটি প্রবন্ধ গ্রন্থ। ‘দিবারাত্রির কাব্য’ মানিক বন্ধ্যোপাধ্যায় রচিত ‍উপন্যাস। ‘হাঁসুলী বাঁকের উপকথা’ তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত বিখ্যাত উপন্যাস; ‘পথের পাঁচালী’ বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায় রচিত শ্রেষ্ঠ উপন্যাস।

 

২১. ‘বিষাদ সিন্ধুএকটি

(ক) গবেষণা গ্রন্থ                            (খ) ধর্মবিষয়ক প্রবন্ধ

(গ) ইতিহাস আশ্রয়ী উপন্যাস               (ঘ) আত্মজীবনী

 

উত্তর: () ইতিহাস আশ্রয়ী উপন্যাস

ব্যাখ্যা: ‘বিষাদ সিন্ধু’ মীর মশাররফ হোসেন রচিত ইতিহাস আশ্রয়ী উপন্যাস। এটি তার অমর সৃষ্টি। মহানবী হযরত মুহাম্মদ (স.)- এর দৌহিত্র ইমাম হোসেনের সঙ্গে দামেস্ক অধিপতি মাবিয়ার একমাত্র পুত্র এজিদের কারবালা প্রান্তরে রক্তক্ষয়ী যুদ্ধ এবং হাসান-হোসেনের করুণ মৃত্যু ‘বিষাদ সিন্ধু’ গ্রন্থের মূল বিষয়।

 

২২. মধ্যযুগের শেষ কবি ভারতচন্দ্র রায়গুণাকর কত সালে মৃত্যুবরণ করেন?

(ক) ১৭৫৬                       (খ) ১৭৫২

(গ) ১৭৬০                        (ঘ) ১৭৬২

 

উত্তর: () ১৭৬০

ব্যাখ্যা: মধ্যযুগের শেষ কবি ভারতচন্দ্র রায়গুণাকর ১৭৬০ সালে মৃত্যুবরণ করেন। তিনি ১৭১২ খ্রিস্টাব্দে পশ্চিমবঙ্গের হাওড়া জেলার পান্ডুয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। তার কবি প্রতিভার শ্রেষ্ঠ নিদর্শন ‘অন্নদামঙ্গল’ কাব্য। বাংলা সাহিত্যের অমর চরিত্র ঈশ্বরী পাটনীর করা ‘আমার সন্তান যেন থাকে দুধে ভাতে’ উক্তিটি দ্বারা তার কবি প্রতিভার প্রমাণ পাওয়া যায়।

 

২৩. ‘তোহফাকাব্যটি কে রচনা করেন?

(ক) দৌলত কাজী               (খ) মাগন ঠাকুর

(গ) সাবিরিদ খান                (ঘ) আলাওল

 

উত্তর: () আলাওল

ব্যাখ্যা: ‘তোহফা’ কাব্যটি মধ্যযুগের শ্রেষ্ঠ কবি সৈয়দ আলাওল রচনা করেন। তার প্রথম ও শ্রেষ্ঠ রচনা ‘পদ্মাবতী’; তার অন্যান্য উল্লেখযোগ্য গ্রন্থ: সিকান্দারনামা, সয়ফুলমুলুক-বদিউজ্জামাল। মধ্যযুগে বাংলা রোমান্টিক কাব্যধারার পথিকৃৎ দৌলত কাজীর শ্রেষ্ঠ রচনা ‘সতীময়না ও লোরচন্দ্রনী’। মাগন ঠাকুরের রচনা হিসেবে ‘চন্দ্রাবতী’ কাব্যের উল্লেখ পাওয়া যায়। মধ্যযুগের রোমান্টিক প্রণয়কাব্যের কবি হিসেবে সাবিরিদ খান কালিকামঙ্গল কাব্যধারার ‘বিদ্যাসুন্দর’ কাহিনীর অন্যতম কবি রূপে স্বীয় কৃতিত্ব প্রদর্শন করেছেন।

 

২৪. এন্টনি ফিরিঙ্গি কী জাতীয় সাহিত্যের রচয়িতা?

(ক) কবিগান                     (খ) পুঁথি সাহিত্য

(গ) নাথ সাহিত্য                 (ঘ) বৈষ্ণব পদ সাহিত্য

 

উত্তর: () কবিগান        

ব্যাখ্যা: এন্টনি ফিরিঙ্গি ফিরিঙ্গি কবিগান রচয়িতা হিসেবে খ্যাতি অর্জন করেন। মধ্যযুগের বাংলা সাহিত্যের সুবিশাল পরিসরের শেষ পর্যায়ে কবিগানের উদ্ভব ঘটেছিল। তখন মুসলমানরা পুঁথি সাহিত্য এবং হিন্দুরা কবিগান রচনায় মনোনিবেশ করেছিল। আর কবিওয়ালাদের মধ্যে উল্লেখযোগ্য ছিলেন গোঁজলা গুই, হরু ঠাকুর, নিতাই বৈরাগী ও এন্টনি ফিরিঙ্গি। লৌকিক-অলৌকিক কাহিনি নিয়ে বাংলা ভাষায় যেসব সাহিত্য রচিত হয়েছে তাকে নাথ সাহিত্য বলে। শ্রীরাধা ও শ্রীকৃষ্ণের প্রেমলীলা নিয়ে বাংলা ভাষায় (এবং ব্রজবুলিতে) এক বিপুলাকায় সাহিত্য রচিত হয়েছে, রাধা-কৃষ্ণের সেই প্রণয়লীলার কাহিনি নিয়ে রচিত পদসমূহকে সংক্ষেপে বৈষ্ণব পদসাহিত্য বলে।

 

২৫. ‘রাজা প্রতাপাদিত্য চরিত্রগ্রন্থটির প্রণেতা

(ক) উইলিয়াম কেরি                        (খ) গোলকনাথ শর্মা

(গ) রামরাম বসু                             (ঘ) হরপ্রসাদ রায়

 

উত্তর: () রামরাম বসু

ব্যাখ্যা: রামরাম বসু রচিত ‘রাজা প্রতাপাদিত্য চরিত্র’ গ্রন্থে রাজা প্রতাপাদিত্য সম্পর্কে জ্ঞাত কাহিনিগুলোর বর্ণনা প্রদান করা হয়েছে। ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা বিভাগের প্রধান অধ্যক্ষ উইলিয়াম কেরি রচিত বিখ্যাত গ্রন্থ ‘কথোপকথন’।  গোলকনাথ শর্মার ‘হিতোপদেশ’ ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের পাঠ্যপুস্তক হিসেবে মুদ্রিত ও প্রকাশিত হয়। হরপ্রসার রায়ের অনূদিত গ্রন্থ ‘পুরুষপরীক্ষা’।

 

২৬. ‘ইয়ং বেঙ্গলগোষ্ঠীর মুখপত্ররূপে কোন পত্রিকা প্রকাশিত হয়?

(ক) বঙ্গদূত                      (খ) জ্ঞানান্বেষণ

(গ) জ্ঞানাঙ্কুর                    (ঘ) সংবাদ প্রভাকর

 

উত্তর: () জ্ঞানান্বেষণ

ব্যাখ্যা: ইয়ং বেঙ্গল বলতে ইংরেজি ভাবধারাপুষ্ট বাঙালি যুবকদের বোঝাত। মিশনারিদের দ্বারা অনুপ্রাণিত হয়ে ইয়ং বেঙ্গল গোষ্ঠী মুক্ত চিন্তা দ্বারা উজ্জীবিত হয়েছিল। ‘ইয়ংবেঙ্গল’ গোষ্ঠীর মুখপাত্ররূপে ‘জ্ঞানান্বেষণ’ পত্রিকাটি প্রকাশিত হয় ১৮৩১ সাল থেকে ১৮৪৪ সাল পর্যন্ত। ‘বঙ্গদূত’ নীলমণি হালদারের সম্পাদনায় ১৮২৯ সালে প্রকাশিত হয়। ‘সংবাদ প্রভাকর’ ঈশ্বরচন্দ্র গুপ্তের সম্পাদনায় ১৮৩১ সালে প্রকাশিত হয়। এটি বাংলা ভাষায় প্রকাশিত প্রথম দৈনিক পত্রিকা। ‘জ্ঞানাঙ্কুর’ ১৮০২ সালে শ্রীকৃষ্ণ দাসের সম্পাদনায় প্রকাশিত হয়।

 

২৭. হরিনাথ মজুমদার সম্পাদিত পত্রিকার নাম কি?

(ক) অবকাশ রঞ্জিকা                        (খ) বিবিধার্য সংগ্রহ

(গ) কাব্য প্রকাশ                             (ঘ) গ্রামবার্তা প্রকাশিকা

 

উত্তর: () গ্রামবার্তা প্রকাশিকা

ব্যাখ্যা: হরিনাথ মজুমদার সম্পাদিত ‘গ্রামবার্তা প্রকাশিত’ ১৮৬৩ সালে মাসিক পত্রিকা হিসেবে প্রকাশিত হয়, যা পরবর্তীতে পাক্ষিক ও সর্বশেষ সাপ্তাহিকে পরিণত হয়। ১৮৭৩ সালে কুষ্টিয়ার কুমারখালি গ্রামে এ পত্রিকার নিজস্ব ছাপাখানা প্রতিষ্ঠিত হয়।

 

২৮. নিচের কোনটি ভ্রমণসাহিত্য বিষয়ক গ্রন্থ নয়?

(ক) চার ইয়ারী কথা                        (খ) পালামৌ

(গ) দৃষ্টিপাত                                  (ঘ) দেশে বিদেশে

 

উত্তর: () চার ইয়ারী কথা

ব্যাখ্যা: ‘চার ইয়ারী কথা’ প্রমথ চৌধুরী রচিত গল্পগ্রন্থ। ‘পালামৌ’ সঞ্জীবচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত বাংলা সাহিত্যের প্রথম ভ্রমণ কাহিনিমূলক গ্রন্থ। ‘দেশে বিদেশে’ সৈয়দ মুজতবা আলী রচিত ভ্রমণকাহিনি। ‘দৃষ্টিপাত’ যাযাবর রচিত ভ্রমণকাহিনি।

 

২৯. নিচের যে উপন্যাসে গ্রামীণ সমাজ জীবনের চিত্র প্রাধ্যান্য লাভ করেনি

(ক) গণদেবতা                   (খ) পদ্মানদীর মাঝি

(গ) সীতারাম                     (ঘ) পধের পাঁচালী

 

উত্তর: () সীতারাম

ব্যাখ্যা: ‘সীতারাম’ বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায় রচিত রাজনৈতিক উপন্যাস। এটি বঙ্কিমচন্দ্র রচিত সর্বশেষ উপন্যাস। সীতারাম একটি ঐতিহাসিক চরিত্র। এ উপন্যাসে ঐতিহাসিক কিছু ঘটনাও আছে। ক্ষুদ্র সামন্ত রাজ্যের উত্থানপতনের ইতিহাস, পারিবারিক জীবনের সমস্যা এবং বিপর্যস্ত ব্যক্তি চরিত্রের সমাবেশ ঘটেছে এ উপন্যাসে। ‘গণদেবতা’ (তারাশঙ্কর বন্দ্যোপাধ্যায়); ‘পদ্মানদীর মাঝি’ (মানিক বন্দ্যোপাধ্যায়) এবং ‘পথের পাঁচালী (বিভূতিভূষণ বন্দ্যোপাধ্যায়) উপন্যাসে গ্রামীণ সমাজ জীবনের চিত্র প্রাধান্য পেয়েছে।

 

৩০. নিচের কোন চরিত্র দুটি রবীন্দ্রনাথের ‘ঘরে বাইরে’ উপন্যাসের?

(ক) বিহারী-বিনোদিনী                      (খ) নিখিলেস-বিমলা

(গ) মধুসূদন-কুমুদিনী                       (ঘ) অমিত-লাবণ্য

 

উত্তর: () নিখিলেস-বিমলা

ব্যাখ্যা: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত ‘ঘরে-বাইরে’ উপন্যাসের চরিত্র নিখিলেম ও বিমলা। স্বদেশি আন্দোলনের পটভূমিকায় রচিত এ উপন্যাসে একদিকে আছে জাতিপ্রেম ও সংকীর্ণ স্বাদেশিকতার সমালোচনা। অন্যদিকে আছে সমাজ ও প্রথা দ্বারা নিয়ন্ত্রিত নারী-পুরুষের সম্পর্ক, বিশেষত পরস্পরের আকর্ষণ-বিকর্ষণের বিশ্লেষণ। ‘বিহারী-বিনোদিনী’, ‘মধুসূদন-কুমুদীনি’ ও ‘অমিত-লাবণ্য’ যথাক্রমে চোখের বালি, যোগাযোগ ও শেষের কবিতা- উপন্যাসের চরিত্র।

 

৩১. কোনটি কাজী নজরুল ইসলামের উপন্যাস?

(ক) রিক্তের বেদন              (খ) সর্বহারা

(গ) আলেয়া                      (ঘ) কুহেলিকা

 

উত্তর: () কুহেলিকা

ব্যাখ্যা: ‘কুহেলিকা’ কাজী নজরুল ইসলাম রচিত উপন্যাস। এ উপন্যাসে রাজনৈতিক প্রসঙ্গ হিসেবে স্বদেশি দলের সম্পৃক্ততা প্রকাশ পেয়েছে। এটি তার রচিত তৃতীয় ও সর্বশেষ উপন্যাস। ‘রিক্তের বেদন’ কাজী নজরুল ইসলাম রচিত গল্পগ্রন্থ, ‘আলেয়া’ তার রচিত নাটক এবং ‘সর্বহারা’ তারই রচিত কাব্যগ্রন্থ।

 

৩২. কোনটি মাইকেল মধুসূদন দত্তের পত্রকাব্য?

(ক) ব্রজাঙ্গনা                    (খ) বিলাতের পত্র

(গ) বীরাঙ্গনা                     (ঘ) হিমালয়

 

উত্তর: () বীরাঙ্গনা

ব্যাখ্যা: মাইকেল মধুসূদন দত্তের ‘বীরাঙ্গনা’ বাংলা সাহিত্যের প্রথম পত্রকাব্য। এ কাব্যে মোট এগারোটি পত্র আছে। এ কাব্যে মধুসূদন দত্ত পৌরাণিক নারীদের আধুনিক মানুষ হিসেবে পুনর্জাগরিত করেছেন। ‘ব্রজাঙ্গনা’ মধুসূদন দত্ত রচিত রাধা-কৃষ্ণ বিষয়ক গীতিকাব্য। ‘হিমালয়’ ধলধর সেন রচিত ভ্রমণকাহিনি। আর ‘বিলাতের পত্র’ ভ্রমণ কাহিনীর রচয়িতা গিরিশচন্দ্র বসু।

 

৩৩. ‘একখানি ছোট ক্ষেত আমি একেলা’- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কোন কবিতার চরণ?

(ক) সোনার তরী                 (খ) চিত্রা

(গ) মানসী                        (ঘ) বলাকা

 

উত্তর: () সোনার তরী

ব্যাখ্যা: ‘একখানি ছোট ক্ষেত আমি একেলা’- রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত ‘সোনার তরী’ কবিতার চরণ। ‘সোনার তরী’ কাব্যগ্রন্থের নামকবিতা হচ্ছে ‘সোনার তরী’। অন্যদিকে মানসী, চিত্রা ও বলাকা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত কাব্যগ্রন্থ।

 

৩৪. ‘আমি কিংবদন্তীর কথা বলছি’- কবিতাটি কার লেখা?

(ক) শামসুর রহমান             (খ) আল মাহমুদ

(গ) আবুল ফজল                (ঘ) আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

 

উত্তর: () আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ

ব্যাখ্যা: ‘আমি কিংবদন্তীর কথা বলছি’- কবিতাটি আবু জাফর ওবায়দুল্লাহ রচিত ‘আমি কিংবদন্তীর কথা বলছি’ কাব্যগ্রন্থের নামকবিতা। এ কবিতার কবির ইতিহাস ও ঐতিহ্যবোধ, কবিতা, দেশ, মাটি, মানুষ এবং স্বজাতিপ্রেম আর মানবধারার ধারাবাহিকতার প্রতি, সুন্দরের প্রতি, শুভ ও কল্যাণের প্রতি, সংগ্রাম ও সাধনার প্রতি সর্বোপরি জীবনের প্রতি গভীর আকর্ষণ প্রকাশ পেয়েছে। শাসমুর রহমান রচিত বিখ্যাত কবিতা ‘স্বাধীনতা তুমি’, ‘তুমি আসবে বলে হে স্বাধীনতা’। আল মাহমুদ রচিত বিখ্যাত কবিতা ও কাব্যগ্রন্থ ‘সোনালী কাবিন।’ আবুল ফজল কথা শিল্পী হিসেবে প্রসিদ্ধি লাখ করেন। তার রচিত উল্লেখযোগ্য উপন্যাস: চৌচির, গল্প; মাটির পৃথিবী।

 

৩৫. কোনটি শওকত ওসমানের রচনা নয়?

(ক) চৌরসন্ধি                    (খ) ক্রীতদাসের হাসি

(গ) ভেজাল                       (ঘ) বনি আদম

 

উত্তর: () ভেজাল

ব্যাখ্যা: ‘চৌরসন্ধি’, ‘ক্রীতদাসের হাসি’ ও ‘বনি আদম’ শওকত ওসমান রচিত উপন্যাস। অন্যদিকে ‘ভেজাল’ সুকান্ত ভট্টাচার্য রচিত বিখ্যাত কবিতা।

বিষয়: ইংরেজি

৩৬. Peofessor Razzak was a scholar…….. refute. (Fill in the gap)

(ক) in                           (খ) of

(গ) after                     (ঘ) by

 

উত্তর: —

ব্যাখ্যা: Refute(v)- মতামত বা বিবৃতি খন্ডন করা। শব্দটি verb বলে এবং এর পূর্বে preposition বসে তা বাক্যটিকে অর্থবোধক করছে না। তবে শব্দটি যদি refute না হয়ে repute হতো, তাহলে শূন্যস্থানে ‘of’ ব্যবহার করলে বাক্যটি অর্থপূর্ণ হয়। সেক্ষেত্রে বাক্যটির অর্থ হয়- অধ্যাপক রাজ্জাক ছিলেন একজন খ্যতিসম্পন্ন পন্ডিত বা বিদ্বান লোক।

 

৩৭. ‘David Copperfield is a/an …..novel.

(ক) Victorian                        (খ) Eligabethan

(গ) Romantic                        (ঘ) Modern

 

উত্তর: () Victorian        

ব্যাখ্যা: Charles Dickens (১৮১২-১৮৭০)- এর বিখ্যাত কিছু উপন্যাসের মধ্যে David Copperfield, A Tale of Two Cities, Great Expectations, The Pickwick Papers ইত্যাদি উল্লেখযোগ্য।  তিনি Victorian(১৮৩২-১৯০১) যুদের একজন Novelist ছিলেন।

 

৩৮. ‘Elegy Written in a country Churchyard’ is written by-

(ক) William Wordsworth             (খ) Thomas Gray

(গ) John Keats                                  (ঘ) W. B. Yeats

 

উত্তর: () Thomas Gray

ব্যাখ্যা: ‘Elegy Written in a Country Churchyard’ কবিতাটি Thomas Gray রচিত একটি বিখ্যাত elegy বা শোকগাথা।

 

৩৯. John Smith is good….Mathematics. (Fill in the gap)

(ক) at              (খ) in

(গ) of               (ঘ) after

 

উত্তর: () at  

ব্যাখ্যা: Good at- দক্ষ। কেই কোনো কিছুতে বা কোন বিষয়ে দক্ষ বুঝাতে good এর পর ‘at’ preposition ব্যবহৃত হয়।

 

৪০. Shakespeare’s Measure for Measure’ is a successful-

(ক) tragedy                           (খ) comedy

(গ) tragi-comedy                 (ঘ) melodrama

 

উত্তর: () comedy

ব্যাখ্যা: Shakespeare- এর বিখ্যাত comedy- গুলোর মধ্যে Measure for Measure অন্যতম। তার আরও কিছু বিখ্যাত comedy- গুলোর মধ্যে রয়েছে- Twelfth Night, All’s Well That Ends Well, As you Like It, The Comedy of Errors, A Midsummer Night’s Dream ইত্যাদি। আর তার বিখ্যাত tragedy গুলো হচ্ছে Hamlet, King Lear, Othello, Macbeth, Romeo and Juliet. ইত্যাদি।

 

৪১.  Teacher said, ‘The earth……round the sun.’

(ক) moves                              (খ) moved

(গ) has moved                      (ঘ) will be moving

 

উত্তর: () moves

ব্যাখ্যা:  Universal truth বা চিরন্তন সত্য সর্বদা Present Indefinite Tense দ্বারা প্রকাশ করা হয় বলে শূন্যস্থানের verb-টি হবে ‘moves’।

 

৪২. The romantic age in English literature began with the publication of-

(ক) Preface of Shakespeare                   (খ) Preface of Lyrical Ballads

(গ) Preface to Ancient mariners           (ঘ) Preface to Dr. Johnson

 

উত্তর: () Preface of Lyrical Ballads

ব্যাখ্যা: ‘Preface of Lyrical Ballads’- এর প্রকাশনার মধ্য দিয়ে Romantic Age শুরু হয়। S. T. Coleridge এবং W. Wordsworth সম্মিলিতভাবে ১৭৯৮ সালে এটি প্রকাশ করেন।

 

৪৩. In English grammer, ….. deals with formation of sentences.

(ক) Morphology                   (খ) Etymology

(গ) Syntax                             (ঘ) Semantics

 

উত্তর: () Syntax

ব্যাখ্যা: Linguistics বা ভাষাবিজ্ঞানে Morphology শব্দের গঠন নিয়ে, Etymology- শব্দের উৎপত্তি ও ইতিহাস নিয়ে, Syntax বাক্যের গঠন নিয়ে এবং Semantics শব্দ ও বাক্যের অর্থ নিয়ে আলোচনা করে।

 

৪৪. Which of the following books is written by Thomas Hardy?

(ক) Vanity Fair                                (খ) The Return of the Nature

(গ) Pride and Prejudice                (ঘ) Oliver Twist

 

উত্তর: () The Return of the Nature

ব্যাখ্যা: Victorian Age- এর অন্যতম প্রধান ঔপন্যাসিক Thomas Hardy রচিত উপন্যাসগুলো হচ্ছে- The Return of the Nature, Tess of the D’Urbervilles, Far from the Madding Crowd, Under the Greenwood Tree ইত্যাদি। আর Vanity Fair, Pride and Prejudice এবং Oliver Twist লিখেছেন যথাক্রমে William Makepeace Thackeray, Jane Austen এবং Charles Dickens।

 

৪৫. He insisted….. there. (Fill in the gap)

(ক) on my going                   (খ) is to go

(গ) over going                      (ঘ) to go

 

উত্তর: () on my going

ব্যাখ্যা: Insist on sth/sb doing sth- হচ্ছে একটি appropriate use যা কোনো কিছুর উপর বা কারও কোনো কিছু করার উপর জোর প্রদান করার ক্ষেত্রে ব্যবহৃত হয়।

 

৪৬. The idiom ‘A stitch in time saves nine’- refers to the importance of……

(ক) saving lives                   (খ) timely action

(গ) saving time                    (ঘ) time tailoring

 

উত্তর: () timely action

ব্যাখ্যা: এটি একটি প্রবাদ বাক্য যার অর্থ “সময়ের এক ফোঁড়, অসময়ের দশ ফোঁড়”। এর দ্বারা সময়মতো কাজ করা বা timely action- কে বোঝানো হয়।

 

৪৭. ‘Frailty thy name is woman’- is a famous dialogue from.

(ক) Christopher Marlowe                        (খ) John Webstar

(গ) W. Shakespeare                                   (ঘ) T. S. Eliot

 

উত্তর: () W. Shakespeare

ব্যাখ্যা: প্রশ্নোক্ত dialogue-টি Shakespeare- এর বিখ্যাত tragedy ‘Hamlet’ থেকে নেওয়া হয়েছে। এটি Hamlet- এর প্রথম soliloquy (স্বগতোক্তি)- এর অংশবিশেষ।

 

৪৮. The poem ‘The Solitary Reaper’ is written by…….

(ক) W. H. Auden                  (খ) W. Wordsworth

(গ) W. B. Yeats                     (ঘ) Ezra Pound

 

উত্তর: () W. Wordsworth

ব্যাখ্যা: ‘The Solitary Reaper’ হচ্ছে William Wordsworth- এর লেখা একটি বিখ্যাত Ballad বা গাথাকাব্য।

 

৪৯. ‘The Merchant of Venice’ is a Shakespearean play about….

(ক) a Jew                    (খ) a Moor

(গ) a Roman              (ঘ) a Turk

 

উত্তর: () a Jew

ব্যাখ্যা: ইতালির ভেনিস নগরীর Shylock নামে একজন Jewish (ইহুদি) merchant (money lender)- এর উপর ভিত্তি করে Shakespeare ‘The Merchant of Venice’ comedy- টি লেখেন।

 

৫০. What would be the right antonym for ‘initiative’?

(ক) apathy                (খ) indolence

(গ) enterprise          (ঘ) activity

 

উত্তর: () apathy

ব্যাখ্যা: Initiative অর্থ- পরিকল্পনা, উদ্যোগ, প্রারম্ভ। Option গুলোর মধ্যে apathy- অর্থ অনীহা, অনাগ্রহ; indolence- অলসতা, enterprise- প্রারম্ভ, উদ্যোগ এবং activity- অর্থ কার্যকারিতা, সক্রিয়তা। Initiative- এর antonym হিসেবে apathy ও indolence হতে পারে । তবে, ‘apathy’ antonym হিসেবে most appropriate।

 

৫১. The play ‘Candida’ is by……

(ক) James Joyce                   (খ) Shakespeare

(গ) G. B. Shaw                      (ঘ) Arthur Miller

 

উত্তর: () G. B. Shaw

ব্যাখ্যা: ‘Candida’ হচ্ছে একটি comedy যা G. B. Shaw ১৮৯৪ সালে রচনা করেন।

 

৫২. Which of the following writers belongs to the romantic period in English literature?

(ক) A. Tennyson                  (খ) Alexander Pope

(গ) John Dryden                   (ঘ) S.T. Coleridge

 

উত্তর: () S.T. Coleridge

ব্যাখ্যা: Romantic Period- এর সময়সীমা হচ্ছে ১৭৯৮-১৮৩২। এ সময়ের একজন writer হচ্ছেন S.T. Coleridge (১৭৭২-১৮৩৪)। Alfred Lord Tennyson (১৮০৯-১৮৯২) হচ্ছেন victorian কবি; Alexander Pope (১৬৮৮-১৭৪৪) এবং John Dryden (১৬৩১-১৭০০) হচ্ছেন Neo-classical poets.

 

৫৩. This could have worked if I……. been more cautious.

(ক) had                       (খ) have

(গ) might                   (ঘ) would

 

উত্তর: () had         

ব্যাখ্যা: 3rd conditional- এর নিয়মানুসারে Principal clause- এ could have/would have/might have থাকলে if clause টি Past Perfect হবে। সুতরাং শূন্যস্থানে Past Perfect- এর auxiliary verb ‘had’ হবে।

 

৫৪. The Climax of a plot is what happens……

(ক) in the beginning                      (খ) at the height

(গ) at the end                                   (ঘ) in the confrontation

 

উত্তর: () at the height

ব্যাখ্যা: Climax হচ্ছে কোনো নাটক বা গল্পের সর্বোচ্চ অবস্থা বা turning point যেখানে নাটক বৃদ্ধি শেষ হয় আর ঘটনা পতন শুরু হয়। সুতরাং Climax happens at the height of a plot।

 

৫৫. London town is found a living being in the works of…….

(ক) Thomas  Hardy                        (খ) Charles Dickens

(গ) W. Congreve                  (ঘ) D.H. Lawrence

 

উত্তর: () Charles Dickens

ব্যাখ্যা: Charles Dickens তার প্রায় সব উপন্যাসই London- কে ঘিরে কাহিনী রচনা করেছেন। যেমন: A Tale of Two Cities- এ তিনি London ও Paris নিয়ে ব্যাপক আলোচনা করেছেন। এ ছাড়া তার ‘The Pickwick Papers’, ‘Oliver Twist’, ‘David Copperfield’, ‘Great Expectations’ প্রভৃতি novel- এ তিনি কোনো না কোনো ভাবে London- এর একটি setting তৈরি করেছেন।

 

৫৬. I have been living in Dhaka……2000.

(ক) since                    (খ) from

(গ) after                     (ঘ) till

 

উত্তর: () since      

ব্যাখ্যা: Present Perfect Continuous Tense- এ point of time অর্থাৎ নির্দিষ্ট সময়ের উল্লেখ থাকলে তার পূর্বে since বসে। যেমন: since 2004, since morning ইত্যাদি।

 

৫৭. Give the antonym of the word ‘transitory’.

(ক) temporary                     (খ) permanent

(গ) transparent                   (ঘ) short-lived

 

উত্তর: () permanent

ব্যাখ্যা: Transitory অর্থ- ক্ষণস্থায়ী। Option- গুলোর মধ্যে temporary, transparent ও short-lived- এর অর্থ ক্ষণস্থায়ী, স্বল্পকালীন এবং permanent অর্থ- স্থায়ী। সুতরাং transitory- এর antonym হচ্ছে permanent।

 

৫৮. Verb of ‘Number’ is-

(ক) number                           (খ) enumerate

(গ) numbering                     (ঘ) numerical

 

উত্তর: () number  

ব্যাখ্যা: Oxford Dictionary অনুযায়ী number শব্দটি একাধারে noun এবং verb বলে সঠিক উত্তর হবে number। আবার, enumerate শব্দটিও verb যার পৃথক noun form রয়েছে, যেমন: enumeration। ‍সুতরাং number (n)- এর শব্দজাত verb হচ্ছে number (v) আর enumerate, number- এর শব্দজাত verb নয়, বরং এটি number- এর synonym যার অর্থ গণনা করা।

 

৫৯. ‘Child is the father of man’ is taken from the poem of-

(ক) W. Wordsworth                       (খ) S. T. Coleridge

(গ) P. B. Shelly                                 (ঘ) A. C. Swinburne

 

উত্তর: () W. Wordsworth

ব্যাখ্যা: ‘Child is the father of man’ হচ্ছে William Wordsworth- এর লেখা ‘My Heart Leaps up When I Behold’ নামক কবিতার একটি লাইন।

 

৬০. Slow and steady—– the race. (Fill in the gap)

(ক) win                       (খ) wins

(গ) has won               (ঘ) won

 

উত্তর: () wins

ব্যাখ্যা: দুটি noun, and দ্বারা যুক্ত হয়ে যদি একই ভাব বা অর্থ প্রকাশ করে, তবে verbটি singular হয়। এজন্য শূন্যস্থানে ‘wins’ হবে।

 

৬১. ‘Man is a political animal’- who said this?

(ক) Dante                  (খ) Plato

(গ) Aristotle              (ঘ) Socrates

 

উত্তর: () Aristotle

ব্যাখ্যা: ‘Man is a political animal’ quotation টি Aristotle- এর ‘Politics’ নামক গ্রন্থ থেকে নেওয়া হয়েছে।

 

৬২. Who is known as ‘the poet of nature’ in English literature?

(ক) Lord Tennyson                         (খ) John Milton

(গ) William Wordsworth              (ঘ) John Keats

 

উত্তর: () William Wordsworth

ব্যাখ্যা: ইংরেজি সাহিত্যে poet of nature বলা হয় William Wordsworth কে। প্রকৃতিকে উপজীব্য করেই তিনি তার কবিতা রচনা করেছেন।

 

৬৩. Identify the correct sentence?

(ক) Yesterday, he has gone home                     (খ) Yesterday, he did gone home

(গ) Yesterday, he had gone home                      (ঘ) Yesterday, he went home

 

উত্তর: () Yesterday, he went home

ব্যাখ্যা: ‘Yesterday’ শব্দটি থাকায় Sentence-টি Past Indefinite Tense হবে। অর্থাৎ ‘Yesterday, he went home’ সঠিক।

 

৬৪. ‘A Passage to India’ is written by-

(ক) E. M. Forster                 (খ) Rudyard Kipling

(গ) Galls Worthy                 (ঘ) A. H. Auden

 

উত্তর: () E. M. Forster  

ব্যাখ্যা: E. M. Forster ১৯২৪ সালে ‘A Passage to India’ উপন্যাসটি লেখেন। British Raj এবং ১৯২০ সালে Indian Independence Movement- এর উপর ভিত্তি করে এ উপন্যাসটি লেখা হয়।

 

৬৫. ‘Gitanjali’ of Rabindranath Tagore was translated by-

(ক) W.B. Yeats                     (খ) Robert Frost

(গ) John Keats                      (ঘ) Rudyard Kipling

 

উত্তর: () W.B. Yeats

ব্যাখ্যা: রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘গীতাঞ্জলি’ নামক কাব্যগ্রন্থটি ইংরেজিতে অনুবাদ মূলত রবীন্দ্রনাথ নিজেই করেছেন। তবে, W.B. Yeats এ ক্ষেত্রে ব্যাপক ভূমিকা রাখেন এবং অনূদিত কাব্যগ্রন্থটির অর্থাৎ ‘Song Offering’- এর Introduction টিও তিনি লিখেন। এ কারণে তার নামটি বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য।

 

৬৬. ‘Venerate’ Means-

(ক) defame               (খ) abuse

(গ) respect                (ঘ) accuse

 

উত্তর: () respect

ব্যাখ্যা: Venerate- অর্থ শ্রদ্ধা করা, সম্মান করা। Option গুলোর মধ্যে defame- নিন্দা করা; abuse- গালি দেওয়া; respect- সম্মান করা এবং accuse- দোষারোপ করা। সুতরাং venerate- এর অর্থ respect।

 

৬৭. Credit tk 5000….my account.

(ক) in                           (খ) with

(গ) against                (ঘ) to

 

উত্তর: () to

ব্যাখ্যা: কারও ব্যাংক অ্যাকাউন্টে টাকা রাখা অর্থে ‘credit’ verb-টির সাথে ‘to’ preposition ব্যবহৃত হয়। I have credited 5000tk to your account। কিন্তু টাকার পরিমাণটি যদি বাক্যের শেষে উল্লেখিত হয়, তাহলে preposition ‘with’ ব্যবহৃত হবে। যেমন: Your account has been credited with 5000tk।

 

৬৮. ‘To do away with’ means-

(ক) to repeat                                    (খ) to start

(গ) to get rid of                    (ঘ) to drive off

 

উত্তর: (গ) to get rid of

ব্যাখ্যা: To do away with অর্থ কোনো কিছু বন্ধ করা, ত্যাগ করা, ধ্বংস করা। Option গুলোর মধ্যে to repeat- পুনরাবৃত্তি করা; to start- শুরু করা; to get rid of- মুক্ত করা বা হওয়া, ত্যাগ করা, ধ্বংস করা এবং to drive off- তাড়িয়ে দেওয়া, ‍শুরু করা (গলফ খেলা) । সুতরাং to do away with- এর meaning হচ্ছে to get rid of।

 

৬৯. Who of the following writers was not a novelist?

(ক) Charles Dickens                      (খ) W.B. Yeats

(গ) James Joyce                                (ঘ) Jane Austen

 

উত্তর: () W.B. Yeats

ব্যাখ্যা: William Butler Yeats ছিলেন একজন Irish poet, dramatist এবং critic। তার বিখ্যাত কিছু কবিতার মধ্যে রয়েছে- The Second Coming, Wild Swans at Coole, A Prayer for My Daughter এবং The Lake Isle of Innisfree ইত্যাদি। Charles Dickens- Victorian Age- এর, James Joyce- Modern Age- এর এবং Jane Austen-Romantic Age- এর Novelist বা ঔপন্যাসিক ছিলেন।

 

৭০. Which one is a correct sentence?

(ক) paper is made of wood                      (খ) paper is made from wood

(গ) paper is made by wood                      (ঘ) paper is made on wood

 

উত্তর: () paper is made from wood

ব্যাখ্যা: যখন কোনো উৎপাদিত বস্তুর উপাদান চোখে দেখে শনাক্ত করা যায়, তখন সেক্ষেত্রে made- এর পর of ব্যবহৃত হয়, আর যদি চোখে দেখে তার উপাদান শনাক্ত করা না যায়, তাহলে made- এর পর ‘from’ ব্যবহৃত হয়।

 

সাধারণ জ্ঞান বাংলাদেশ বিষয়াবলী

৭১. বাঙালি জাতির প্রধান অংশ কোন মূল জাতিগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত?

(ক) দ্রাবিড়                       (খ) নেগ্রিটো

(গ) ভোটচীন                     (ঘ) অস্ট্রিক

 

উত্তর: () অস্ট্রিক

ব্যাখ্যা: প্রাচীনকালে আর্যপূর্ব জনগোষ্ঠীর যে চারটি শাখা এখানে বাস করতো তারা হলো অস্ট্রিক, দ্রাবিড়, নেগ্রিটো ও ভোটচীনীয়। উল্লিখিত চারটি জনগোষ্ঠীর মধ্যে অষ্ট্রিক জনগোষ্ঠী থেকে বাঙালি জাতির প্রধান অংশ গঠিত হয়েছে।

 

৭২. বাংলার সর্বপ্রাচীন জনপদের নাম কি?

(ক) পুন্ড্র                          (খ) তাম্রলিপ্ত

(গ) গৌড়                         (ঘ) হরিকেল

 

উত্তর: () হরিকেল

ব্যাখ্যা: খ্রিষ্টপূর্ব ৩,০০০ অব্দে লিখিত বৈদিক সাহিত্য ও মহাভারতে পুন্ড্র জাতির উল্লেখ আছে। ধারণা করা হয়, এ জাতিই পুন্ড্র জনপদ গড়ে তুলেছিল। এ জনপদের রাজধানী ছিল পুন্ড্রনগর। সে সময়কার জনপদটি বর্তমানের বগুড়া, দিনাজপুর ও রাজশাহী জেলা জুড়ে বিস্তৃত ছিল। বৈয়াকরণিক পাণিনির (আনু. খ্রি. পূ. চতুর্থ শতাব্দীর মধ্যভাগ) গ্রন্থ সর্বপ্রথম ‘গৌড়’ নামের উল্লেখ পাওয়া যায়। হরিকেল ও তাম্রলিপ্ত খ্রিষ্টীয় সপ্তম শতকের কাছাকাছি গড়ে ওঠা জনপদ।

 

৭৩. বাংলা (দেশ ও ভাষা) নামের উৎপত্তির বিষয়টি কোন গ্রন্থে সর্বাধিক উল্লেখিত হয়েছে?

(ক) আলমগীরনামা              (খ) আইন-ই-আকবরী

(গ) আকবরনামা                 (ঘ) তুজুক-ই-আকবরী

 

উত্তর: (খ) আইন-ই-আকবরী

ব্যাখ্যা: সম্রাট আকবরের দরবারের ইতিহাস লেখক আবুল ফজল রচিত ঐতিহাসিক ঘটনাপঞ্জি সম্বলিত ফার্সি ভাষার তিন খন্ডের গ্রন্থ হলো ‘আকবরনামা’। এ গ্রন্থের তৃতীয় খন্ডের নাম হলো ‘আইন-ই-আকবরী’। যেখানে (দেশ ও ভাষা) নামের উৎপত্তির বিষয়টি সর্বাধিক উল্লেখিত আছে। আর সম্রাট আওরঙ্গজেবের লেখা গ্রন্থ হলো ‘ফতোয়া-ই-আলমগীরী’।

 

৭৪. ঢাকার লালবাগের দুর্গ নির্মাণ করেন:

(ক) শাহ সুজা                    (খ) শায়েস্তা খান

(গ) মীর জুমলা                  (ঘ) সুবেদার ইসলাম খান

 

উত্তর: () শায়েস্তা খান

ব্যাখ্যা: লালবাগ কেল্লা পুরাতন ঢাকার লালবাগে অবস্থিত। মুঘল সম্রাট আওরঙ্গজেবের পুত্র শাহজাদা মোহাম্মদ আজম ১৬৭৮ সালে লালবাগ দুর্গের নির্মাণ কাজ শুরু করলেও এর অধিকাংশ কাজ সমাপ্ত করেন শায়েস্তা খান। চকবাজারের ঐতিহাসিক বড় কাটরা নির্মাণ করেন সম্রাট শাহজাহানের দ্বিতীয় পুত্র সুবেদার শাহ সুজা।

৭৫. বাংলার ‘ছিয়াত্তরের মন্বন্তর’- এর সময় কাল:

(ক) ১৭৭০ খ্রিস্টাব্দ              (খ) ১৭৬০ খ্রিস্টাব্দ

(গ) ১৭৬৫ খ্রিস্টাব্দ              (ঘ) ১৭৫৬ খ্রিস্টাব্দ

 

উত্তর: () ১৭৭০ খ্রিস্টাব্দ

ব্যাখ্যা: রবার্ট ক্লাইভ দ্বৈত শাসন ব্যবস্থা প্রণয়ন করলে দেওয়ানি চলে যায় কোম্পানির হাতে আর প্রশাসনিক ক্ষমতা থাকে নবাবের হাতে। ফলে বাংলায় এক অভূতপূর্ব প্রশাসনিক জটিলতার সৃষ্টি হয়। এর ফল হিসেবে ১৭৭০ খ্রিস্টাব্দে (১১৭৬ বঙ্গাব্দ) দেখা দেয় ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ, যা ‘ছিয়াত্তরের মন্বন্তর’ নামে পরিচিত। এ দুর্ভিক্ষে বাংলার জনসংখ্যার এক-তৃতীয়াংশ মৃত্যুমুখে পতিত হয়।

 

৭৬. সর্বদলীয় কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ গঠিত হয়?  

(ক) ৩১ জানুয়ারি ১৯৫২                   (খ) ২ ফেব্রুয়ারি ১৯৫২

(গ) ১৮ ফেব্রুয়ারি ১৯৫২                    (ঘ) ২০ জানুয়ারি ১৯৫২

 

উত্তর: —

ব্যাখ্যা: রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে ‘সর্বদলীয় কেন্দ্রীয় রাষ্ট্রভাষা সংগ্রাম পরিষদ’ গঠিত হয় ১৯৫২ সালের ৩০ জানুয়ারি। আর এ কমিটির আহ্বায়ক ছিলেন কাজী গোলাম মাহবুব।

 

৭৭. ৬ দফা দাবি পেশ করা হয়:  

(ক) ১৯৭০ সালে                 (খ) ১৯৬৬ সালে

(গ) ১৯৬৫ সালে                 (ঘ) ১৯৬৯ সালে

 

উত্তর: () ১৯৬৬ সালে

ব্যাখ্যা: পূর্ব পাকিস্তানকে সামরিক শাসন থেকে রক্ষা এবং অর্থনৈতিক বৈষম্য থেকে মুক্ত করার লক্ষ্যে ১৯৬৬ সালের ৫-৬ ফেব্রুয়ারি লাহোরে অনুষ্ঠিত বিরোধী দলগুলোর সম্মেলনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমান ঐতিহাসিক ছয় দফা কর্মসূচি পেশ করেন।

 

৭৮. বঙ্গবন্ধুর ১৯৭১ সালের ৭ মার্চ ভাষণের সময়কালে পূর্ব পাকিস্তানে যে আন্দোলন চলছিল সেটি হলো:

(ক) ইসলামাবাদের সামরিক সরকার পদত্যাগের আন্দোলন               (খ) পূর্ব পাকিস্তানের অসহযোগ আন্দোলন

(গ) প্রেসিডেন্ট ইয়াহহিয়ার পদত্যাগ আন্দোলন                               (ঘ) মার্শাল ‘ল’ পদত্যাগের আন্দোলন

 

উত্তর: () পূর্ব পাকিস্তানের অসহযোগ আন্দোলন

ব্যাখ্যা: ১ মার্চ ১৯৭১ ইয়াহিয়া খান পূর্ব ঘোষিত ৩ মার্চের ঢাকায় পাকিস্তান জাতীয় পরিষদের ডাকা অধিবেশন স্থগিত করেন। ঐ স্থগিতাদেশের প্রতিবাদে বাঙালি জনতা রাস্তায় নেমে আসে। সেদিন থেকে ২৫ মার্চ মুক্তিযুদ্ধ শুরুর পূর্ব মুহূর্তে পর্যন্ত পূর্ব পাকিস্তান জুড়ে চলে অসহযোগ আন্দোলন।

 

৭৯. ২৬ মার্চ ১৯৭১- এর স্বাধীনতা ঘোষণা বঙ্গবন্ধু জারী করেন-

(ক) বেতার/ রেডিওর মাধ্যমে             (খ) ওয়্যারলেসের মাধ্যমে

(গ) টেলিগ্রামের মাধ্যমে                    (ঘ) টেলিভিশনের মাধ্যমে

 

উত্তর: () ওয়্যারলেসের মাধ্যমে

ব্যাখ্যা: ১৯৭১ সালের মার্চের মধ্যরাতে অর্থাৎ ২৬ মার্চের প্রথম প্রহরে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবর রহমানকে তার ধানমন্ডির ৩২ নম্বর বাড়ি থেকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারের পূর্বে বঙ্গবন্ধু ইপিআরের ওয়্যারলেসের মাধ্যমে বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন, যা পরদিন অর্থাৎ ২৬ মার্চে চট্টগ্রাম বেতার কেন্দ্র থেকে চট্টগ্রাম আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান প্রচার করেন।

 

৮০. বাংলাদেশে রোপা আমন ধান কাটা হয়μ

(ক) আষাঢ়-শ্রাবণ মাসে                    (খ) ভাদ্র-আশ্বিন মাসে

(গ) অগ্রহায়ণ-পৌষ মাসে                   (ঘ) মাঘ-ফাল্গুন মাসে

 

উত্তর: () অগ্রহায়ণ-পৌষ মাসে

ব্যাখ্যা: বাংলাদেশে রোপা আমন ধান কাটা হয় অগ্রহায়ণ-পৌষ মাসে (নভেম্বর-জানুয়ারি)। আউশ ধান কাটা হয় জুলাই-আগস্টে আর বোরো ধান কাটা হয় এপ্রিল-মে মাসে।

 

৮১. সুন্দরবন- এর কত শতাংশ বাংলাদেশের ভৌগোলিক সীমার মধ্যে পড়েছে?

(ক) ৫০%                       (খ) ৫৮%

(গ) ৬২%                        (ঘ) ৬৬%

 

উত্তর: () ৬২%

ব্যাখ্যা: সুন্দরবন বাংলাদেশের খুলনা, সাতক্ষীরা ও বাগেরহাট এবং পশ্চিমবঙ্গের চব্বিশ পরগণা জেলাজুড়ে বিস্তুত। এ বনভূমির মোট আয়তন ১০,০০০ বর্গ কিলোমিটার, যার মধ্যে বাংলাদেশ অংশে পড়েছে ৬,০১৭ বর্গ কিলোমিটার। অর্থাৎ শতকরা হিসেবে তা ৬০%- এর একটু বেশি।

 

৮২. MDG- এর অন্যতম লক্ষ্য কি?

(ক) দেশ থেকে পোলিও নির্মূল            (খ) HIV/AIDS নির্মূল করা

(গ) যক্ষ্মা নির্মূল করা                        (ঘ) ক্ষুধা ও দারিদ্র্য দূর করা

 

উত্তর: () ক্ষুধা ও দারিদ্র্য দূর করা

ব্যাখ্যা: ২০০০ সালের সেপ্টেম্বরে জাতিসংঘ আয়োজিত সহস্রাব্দ শীর্ষ বৈঠকে ২০১৫ সালের মধ্যে ৮ টি লক্ষ্য পূরণের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হয়, যা সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্য বা MDG নামে পরিচিত। MDG- এর ৮টি লক্ষ্যের প্রথম লক্ষ্য হলো ক্ষুধা ও দারিদ্র্য দূর করা। উল্লেখ্য MDG- এর মেয়াদ শেষ হওয়ায় ১৭টি লক্ষ্য পূরণের উদ্দেশ্যে SDG (২০১৬-৩০) বাস্তবায়ন শুরু হয়।

 

৮৩. তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা সংবিধানের কততম সংশোধনীর মাধ্যমে রদ করা হয়েছে?

(ক) ১২ তম                      (খ) ১৩ তম

(গ) ১৪ তম                       (ঘ) ১৫ তম

 

উত্তর: () ১৫ তম

ব্যাখ্যা: ৩০ জুন ২০১১ সংবিধানের ১৫ তম সংশোধনীর মাধ্যমে তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা রদ করা হয়। এ ব্যবস্থা প্রণয়ন করা হয়েছিল ২৭ মার্চ ১৯৯৬ সংবিধানের ১৩ তম সংশোধনীর মাধ্যমে।

 

৮৪. বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ কয় কক্ষবিশিষ্ট?

(ক) এক কক্ষ                    (খ) দুই বা দ্বিকক্ষ

(গ) তিন কক্ষ                    (ঘ) বহুকক্ষ বিশিষ্ট

 

উত্তর: () এক কক্ষ

ব্যাখ্যা: যে কোনো দেশের আইন পরিষদ এক বা দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট হয়ে থাকে। বাংলাদেশের জাতীয় সংসদ এক কক্ষ বিশিষ্ট। আর পার্শ্ববর্তী দেশ ভারতের আইনসভা দ্বিকক্ষ বিশিষ্ট।

 

৮৫. ভারতের কতটি ‘ছিটমহল’ বাংলাদেশের ভৌগোলিক সীমার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে?

(ক) ১৬২ টি                      (খ) ১১১ টি

(গ) ৫১ টি                                    (ঘ) ১০১ টি

 

উত্তর: () ১১১ টি

ব্যাখ্যা: ১৯৪৭ সালে ব্রিটিশ ভারতের বিভক্তির পর স্বাধীন ভারত ও পাকিস্তানের মধ্যে পরবর্তীতে ১৯৭১ সালে বাংলাদেশের স্বাধীন হলে বাংলাদেশ ও ভারতের অধিকারভুক্ত কিছু ভূখন্ড উভয় দেশের মধ্যে থেকে যায়। এ ধরনের ভূখন্ডই ছিটমহল। ২০১৫ সালে উভয় দেশের মধ্যে এ ছিটমহল বিনিময় হয়। এ বিনিময়ের মাধ্যমে বাংলাদেশের ভূখন্ডে ভারতের ১১১ টি আর ভারতের ভূখন্ডে বাংলাদেশের ৫১ টি ছিটমহল অন্তর্ভুক্ত হয়।

 

৮৬. বাংলাদেশের ভৌগোলিক অবস্থান কোনটি?

(ক) ২২-৩৪˝থেকে ২০-৩৪˝ দক্ষিণ অক্ষাংশে              (খ) ৮০-৩১˝ থেকে ৪০-৯০˝ দ্রাঘিমাংশে

(গ) ৩৪-২৫˝থেকে ৩৮˝ উত্তর অক্ষাংশে                      (ঘ) ৮৮০১˝থেকে ৯২৪১˝ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে

 

উত্তর: () ৮৮০১˝থেকে ৯২৪১˝ পূর্ব দ্রাঘিমাংশে

ব্যাখ্যা: কোনো দেশের ভৌগোলিক অবস্থান বলতে অক্ষরেখা ও দ্রাঘিমা রেখাভিত্তিক অবস্থানকে বোঝায়। বাংলাদেশ ৮৮০১˝থেকে ৯২৪১˝ পূর্ব দ্রাঘিমারেখা থেকে ২০-৩৪˝ থেকে ২৬-৩৮˝ উত্তর অক্ষরেখার মধ্যে অবস্থিত।

 

৮৭. বাংলাদেশে প্রথম আদমশুমারি অনুষ্ঠিত হয় কবে?

(ক) ১৯৭২ সাল                  (খ) ১৯৭৩ সাল

(গ) ১৯৭৪ সাল                   (ঘ) ১৯৭৭ সাল

 

উত্তর: () ১৯৭৪ সাল

ব্যাখ্যা: বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর ১৯৭৪ সালে প্রথম আদমশুমারি অনুষ্ঠিত হয়। তখন বাংলাদেশের জনসংখ্যা ছিল ৭,৬৩,৯৮,০০০। আর সর্বশেষ পঞ্চমবারের মত আদমশুমারি অনুষ্ঠিত হয় ২০১১ সালে। পঞ্চম আদমশুমারি অনুযায়ি বাংলাদেশের জনসংখ্যা ১৪,৯৭,৭২,৩৬৪ জন।

 

৮৮. কোন উপজাতি বা ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর ধর্ম ইসলাম?

(ক) রাখাইন                      (খ) মারমা

(গ) পাঙন                         (ঘ) খিয়াং

 

উত্তর: () পাঙন

ব্যাখ্যা: বাংলাদেশে বর্তমানে ৪৫ টি নৃ-গোষ্ঠী বসবাস করে। এর মধ্যে একমাত্র পাঙন উপজাতিই ধর্মীয়ভাবে মুসলমান। পাঙন উপজাতিরা মৌলভীবাজার জেলার কমলগঞ্জ উপজেলায় বসবাস করে। এর পারিবারিকভাবে পিতৃতান্ত্রিক। বাংলাদেশ ছাড়া ভারতের মণিপুর, আসাম ও ত্রিপুরাতেও অধিকসংখ্যক পাঙন জনসাধারণ বসবাস করছে।

 

৮৯. ঢাকার ‘ধোলাই খাল’ কে খনন করেন?

(ক) পরিবিবি                    (খ) ইসলাম খান

(গ) শায়েস্তা খান                 (ঘ) ঈশা খান

 

উত্তর: () ইসলাম খান

ব্যাখ্যা: ১৬০৮-১৬১০ খ্রিষ্টাব্দে বাংলার প্রথম মুঘল সুবাদার ইসলাম খান ‘ধোলাই খাল’ খনন করেন। এ খালটি বালু নদীকে বুড়িগঙ্গা নদীর সাথে যুক্ত করেছিল। খালটি পার হওয়ার জন্য ফরাশগঞ্জ ও গেন্ডারিয়া বরাবর একটি ঝুলন্ত সেতু ছিল।

 

৯০. বাংলাভাষাকে পাকিস্তান গণপরিষদ কোন তারিখে অন্যতম রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়?

(ক) ৯ মে ১৯৫৪                             (খ) ২২ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৩

(গ) ১৬ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৬                    (ঘ) ২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৫২

 

উত্তর:—

ব্যাখ্যা: পাকিস্তান গণপরিষদ ৭ মে ১৯৫৪ তারিখে বাংলাভাষাকে রাষ্ট্রভাষা হিসেবে স্বীকৃতি দেয়। আর ২৯ ফেব্রুয়ারি ১৯৫৬ বাংলা ভাষা পাকিস্তানের দ্বিতীয় রাষ্ট্রভাষা হিসেবে সাংবিধানিক স্বীকৃতি পায়।

 

৯১.মুক্তিযুদ্ধকালীন কোন তারিখে বুদ্ধিজীবীদের ওপর ব্যাপক হত্যাকান্ড সংঘটিত হয়?

(ক) ২৫ শে মার্চ ১৯৭১          (খ) ২৬ শে মার্চ ১৯৭১

(গ) ১৪ ডিসেম্বর ১৯৭১          (ঘ) ১৬ ডিসেম্বর ১৯৭১

 

উত্তর: () ১৪ ডিসেম্বর ১৯৭১

ব্যাখ্যা: মুক্তিযুদ্ধের শেষ পর্যায়ে এসে পাকিস্তান হানাদার বাহিনী এ দেশীয় রাজাকার বাহিনীর সহযোগীতায় ১৪ ডিসেম্বর ১৯৭১ বাঙালি বুদ্ধিজীবীদের ওপর ব্যাপক হত্যাকান্ড চালায়। আর ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ, ২৬ মার্চ ও ১৬ ডিসেম্বর যথাক্রমে মুক্তিযুদ্ধ শুরু হয়, বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করে এবং বাংলাদেশের চূড়ান্ত বিজয় সংঘটিত হয়।

 

৯২. বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদানকারী প্রথম ইউরোপীয় দেশ কোনটি?

(ক) যুক্তরাজ্য                    (খ) পূর্ব জার্মানি

(গ) স্পেন                         (ঘ) গ্রিস

 

উত্তর: () পূর্ব জার্মানি

ব্যাখ্যা: বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতিদানকারী প্রথম ইউরোপীয় দেশ তৎকালীন পূর্ব জার্মানি। দেশটি ১৯৭২ সালের ১১ জানুয়ারি বাংলাদেশকে স্বীকৃতি প্রদান করে। যুক্তরাজ্য ১৯৭২ সালের ১৪ ফেব্রুয়ারি, গ্রিস ১৯৭২ সালের ১১ মার্চ এবং স্পেন ১৯৭২ সালের ১২ মে বাংলাদেশকে স্বাধীন দেশ হিসেবে স্বীকৃতি দেয়।

 

৯৩. বাংলাদেশের বৃহত্তর জেলা কতটি?

(ক) ১৭টি                         (খ) ২০টি

(গ) ৬৪টি                         (ঘ) ১৯টি

 

উত্তর:—

ব্যাখ্যা: ১৯৪৭ সালের পূর্ব পর্যন্ত বর্তমান বাংলাদেশ ভূখন্ডে জেলার সংখ্যা ছিল ১৬ টি। ১৯৪৭ সালে দেশ বিভাগের পর নদীয়া জেলা অংশ থেকে প্রাপ্ত অংশ নিয়ে বাংলাদেশ ভূখন্ডে ১৭ তম জেলা ‘কুষ্টিয়া’ গঠিত হয়। পরবর্তীতে ১৯৬৯ সালের ১১ জানুয়ারি বৃহত্তর বরিশাল জেলা থেকে ‘পটুয়াখালী (১৮তম) এবং একই সালের ১ ডিসেম্বর বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলা থেকে ‘টাঙ্গাইল’ (১৯তম) জেলা আত্মপ্রকাশ করে। এরপর ২৬ ডিসেম্বর ১৯৭৮ বৃহত্তর ময়মনসিংহ জেলা থেকে ২০ তম জেলা হিসেবে গঠিত হয় জামালপুর। তারপর বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন তারিখ ও প্রজ্ঞাপন মূলে দেশে জেলার সংখ্যা হয় ৬৪টি।

 

৯৪. ‘শুভলং’ ঝরনা কোন জেলায় অবস্থিত?

(ক) রাঙামাটি                    (খ) বান্দরবান

(গ) মৌলভীবাজার               (ঘ) সিলেট

 

উত্তর: () রাঙামাটি

ব্যাখ্যা: শুভলং ঝরনা বা জলপ্রপাতটি রাঙামাটি সদরের বালুখালি ইউনিয়নে অবস্থিত। বাকলাই জলপ্রপাত বান্দরবানের থানচিতে; মাধবকুন্ড ও হামহাম জলপ্রপাতদ্বয় যথাক্রমে মৌলভীবাজার জেলার বড়লেখা ও কমলগঞ্জ উপজেলায় অবস্থিত।

 

৯৫. বাংলাদেশের উষ্ণতম স্থানের নাম কি?

(ক) পুটিয়া, রাজশাহী                        (খ) নাচোল, চাঁপাইনবাবগঞ্জ

(গ) লালপুর, নাটোর                         (ঘ) ঈশ্বরদি, পাবনা

 

উত্তর: () লালপুর, নাটোর        

ব্যাখ্যা: বাংলাদেশের উষ্ণতম স্থান নাটোরের লালপুর। এ স্থানেই দেমের সর্বনিম্ন বৃষ্টিপাত হয়ে থাকে।

 

৯৬. বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা কবে গৃহীত হয়?

(ক) ১৭ জানুয়ারি ১৯৭২                    (খ) ২৬ মার্চ ১৯৭১

(গ) ১৬ ডিসেম্বর ১৯৭১                     (ঘ) ২১ ফেব্রুয়ারি ১৯৭২

 

উত্তর: () ১৭ জানুয়ারি ১৯৭২

ব্যাখ্যা: জাতীয় পতাকা থেকে মানচিত্র বাদ দেওয়ার পর ১৭ জানুয়ারি ১৯৭২ বর্তমান জাতীয় পতাকা গ্রহীত হয়। ১৯৭১ সালের ২৬ মার্চ বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের স্বাধীনতা ঘোষণা করেন। আর ১৯৭১ সালের ১৬ ডিসেম্বর বাংলাদেশের চূড়ান্ত বিজয় অর্জিত হয়।

 

৯৭.কোনো রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে জাতীয় সংগীতের কত চরণ বাজানো হয়?

(ক) প্রথম ১০টি                  (খ) প্রথম ৪টি

(গ) প্রথম ৬টি                    (ঘ) প্রথম ৫টি

 

উত্তর: () প্রথম ৪টি
ব্যাখ্যা:
বঙ্গভঙ্গের প্রেক্ষাপটে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর রচিত ‘আমার সোনার বাংলা’ কবিতার প্রথম ১০ চরণকে বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত হিসেবে ঘোষণা করা হয় এবং তা গৃহীত হয় ১৯৭২ সালের ১৩ জানুয়ারি। জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের বিধান অনুযায়ী কণ্ঠে গাইতে গেলে দশ চরণ আর যন্ত্র সঙ্গীতে বাজাতে গেল চার চরণ পর্যন্ত বাজাতে হবে।

 

৯৮. ECNEC- এর চেয়ারম্যান বা সভাপতি কে?

(ক) অর্থমন্ত্রী                     (খ) প্রধানমন্ত্রী

(গ) পরিকল্পনামন্ত্রী               (ঘ) স্পীকার

 

উত্তর: () প্রধানমন্ত্রী

ব্যাখ্যা: Executive Committee of the National Economic Council বা একনেক-এর সর্বশেষ ব্যবস্থায় প্রধানমন্ত্রী সভাপতি ও অর্থমন্ত্রী বিকল্প সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। একনেক গঠিত হয় ১৯৮২ সালে।

 

৯৯. ‘অগ্নিশ্বর’ কি ফসলের উন্নত জাত?

(ক) ধান                          (খ) কলা

(গ) পাট                           (ঘ) গম

 

উত্তর: () কলা

ব্যাখ্যা: অগ্নিশ্বর, সিঙ্গাপুরী, অমৃতসাগর উন্নতজাতের কলা। বিআর চান্দিনা, মালা, বিপ্লব, আশা, প্রগতি, মুক্ত কয়েকটি উন্নতজাতের ধান। বিকেআরআই তোষা, বিজেআরআই দেশি ৫, ৬ কয়েকটি উন্নতজাতের পাট। আর সোনালিকা, বলাকা, দোয়েল, কাঞ্চন, আকবর কয়েকটি উন্নতজাতের গম।

 

১০০. বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ সরকারের বড় অর্জন কোনটি?

(ক) যুদ্ধাপরাধীদের বিচার                  (খ) সমুদ্রসীমা বিজয়

(গ) বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ               (ঘ) বিদ্যুৎ উৎপাদন বৃদ্ধি

 

উত্তর: () যুদ্ধাপরাধীদের বিচার

ব্যাখ্যা: প্রশ্নে উল্লেখিত অপশনের সবগুলোই বর্তমান সরকারের সাফল্য। তবে স্বাধীনতার দীর্ঘ ৪০ বছর পর দেশি-বিদেশি চাপের মুখে থেকেও যুদ্ধাপরাধীদের ‍বিচার শুরু করা এবং তা সফলভাবে শেষের পথে থাকা বর্তমান সময়ে বাংলাদেশ সরকারের বড় অর্জন হিসেবে বিবেচিত।

১২১. বাংলাদেশের কখন থেকে বয়স্কভাতা চালু হয়?

(ক) ১৯৯৮ সালে                (খ) ১৯৯৯ সালে

(গ) ২০০০ সালে                 (ঘ) ১৯৯৭ সালে

 

উত্তর: () ১৯৯৮ সালে

ব্যাখ্যা: বাংলাদেশ সরকার ১৯৯৭-৯৮ অর্থবছরে ‘বয়স্কভাতা’ কর্মসূচি প্রবর্তন করে এবং এর কার্যক্রম শুরু বা চালু হয় এপ্রিল ১৯৯৮ থেকে। এ কর্মসূচির উদ্দেশ্য হলো দেশের দুর্দশাগ্রস্ত, অবহেলিত, আর্থিক দৈন্যে জর্জরিত বয়স্ক জনগোষ্ঠীর আর্থ-সামাজিক অবস্থাকে বিবেচনা করে সামাজিক নিরাপত্তা বেষ্টনীর আওতায় নিয়ে আসা।

 

 ১২২. বাংলাদেশের সাথে ভারতের সীমানা কত?

(ক) ৫১৩৮ কি.মি              (খ) ৪৩৭১ কি.মি.

(গ) ৪১৫৬ কি.মি.              (ঘ) ৩৯৭৮ কি.মি.

 

উত্তর: () ৪১৫৬ কি.মি.

ব্যাখ্যা: বাংলাদেশের মোট সীমানার দৈর্ঘ্য ৫১৩৮ কিলোমিটার। তন্মধ্যে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) এর তথ্য মতে, ভারতের সাথে বাংলাদেশের সীমান্ত রয়েছে ৪১৫৬ কিলোমিটার, মিয়ানমারের সাথে রয়েছে ২৭১ কিলোমিটার। বাকি ৭১১ কিলোমিটার হলো উপকূলসীমা।

 

১২৩. মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওয়ারের দৈর্ঘ্য কত?

(ক) ১১.২ কি.মি                (খ) ১২.২ কি.মি

(গ) ১১.৮ কি.মি.                (ঘ) ১২.৮ কি.মি.

 

উত্তর: () ১১.৮ কি.মি.

ব্যাখ্যা: মেয়র মোহাম্মদ হানিফ ফ্লাইওভারটি বর্তমানে দেশের দীর্ঘতম উড়ালসেতু। ১১.৮ কিলোমিটার দৈর্ঘ্য বিশিষ্ট এই ফ্লাইওভার ১১ অক্টোবর ২০১৩ উদ্বোধন করা হয়। এর লেন সংখ্যা ৪ টি, পিলার সংখ্যা ৩১৫ টি ও স্প্যানসংখ্যা ২১৪ টি।

 

১২৪. সুন্দরবনের বাঘ গণনায় ব্যবহৃত হয়μ

(ক) পাগ-মার্ক                  (খ) ফুটমার্ক

(গ) GIS                        (ঘ) কোয়ার্ডবেট

 

উত্তর: () পাগ-মার্ক

ব্যাখ্যা: সুন্দরবনে কয়েকটি পদ্ধতিতে এ পর্যন্ত বাঘ গণনা করা হয়েছে। তবে সর্বশেষ পদ্ধতিটি ছিল ক্যামেরা ট্র্যাকিং পদ্ধতি। ২৬ জুলাই ২০১৫ প্রকাশিত বাঘ গণনার ঐ জরিপের ফলাফলে বলা হয় বাংলাদেশের অংশে ১০৬ টি বাঘ রয়েছে। এর পূর্বে ২০০৪-০৫ বালে পাগ-মার্ক বা পায়ের ছাপ পদ্ধতিতে সুন্দরবনের বাঘ জরিপে বলা হয় সুন্দরবনের বাংলাদেশ অংশে ৪৩০টি বাঘ আছে।

বিষয়: আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি

১০১. কোন সংকটকে কেন্দ্র করে ১৯৫০ সালে ‘শান্তির জন্য ঐক্য প্রস্তাব’ জাতিসংঘের মাধ্যমে পেশ করা হয়?  

(ক) ভিয়েতনাম সংকট                    (খ) সাইপ্রাস সংকট

(গ) কোরিয়া সংকট                         (ঘ) প্যালেস্টাইন সংকট

 

উত্তর: () কোরিয়া সংকট        

ব্যাখ্যা: ১৯৫০ সালে কোরীয় যুদ্ধের সময় সৃষ্ট সংকট মোকাবিলায় একই বছর ৩ নভেম্বর জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদ কর্তৃক গৃহীত একটি প্রস্তাব ‘শান্তির জন্য ঐক্য প্রস্তাব’ বা The Uniting for Peace Resolution।

 

১০২. সুয়েজ খাল কোন বছর চালু হয়?

(ক) ১৯০৩                       (খ) ১৮৬৯

(গ) ১৮৮৯                        (ঘ) ১৮৫৪

 

উত্তর: () ১৮৬৯

ব্যাখ্যা: ভূমধ্যসাগর ও লোহিত সাগরের মধ্যে সংযোগ স্থাপনকারী সুয়েজ খাল খনন শুরু হয় ২৪ এপ্রিল ১৮৫৯। এটি প্রথম নৌ চলাচলের জন্য খুলে দেওয়া হয় ১৮৬৯ সালের ১৭ নভেম্বর। মিশর এ খালটি জাতীয়করণ করে ২৬ জুলাই ১৯৫৬।

 

১০৩. নিম্নলিখিত কোনটি International Mother Earth Day?

(ক) ১৮ এপ্রিল                   (খ) ২০ এপ্রিল

(গ) ২২ এপ্রিল                    (ঘ) ২৪ এপ্রিল

 

উত্তর: () ২২ এপ্রিল     

ব্যাখ্যা: ১৯৭০ সালের ২২ এপ্রিল মার্কিন সিনেটর গেলর্ড নেলসন ধরিত্রী দিবসের প্রচলন করেন। ১৯৯০ সালে জাতিসংঘ তাদের বাৎসরিক পঞ্জিকায় দিবসটিকে স্থান দেয় এবং জাতিসংঘের অন্তর্ভুক্ত দেশসমূহে তা প্রতিপালনের জন্য উৎসাহ প্রদান করা শুরু করে।

 

১০৪. প্রেসিডেন্ট উইড্র উইলসনের 14 point এ কতক নম্বর point এ জাতিপুঞ্জের সৃষ্টির কথা উল্লেখ করা হয়েছে?

(ক) ৯                 (খ) ১২

(গ) ১৩               (ঘ) ১৪

 

উত্তর: () ১৪

ব্যাখ্যা: যুক্তরাজ্যের ২৮ তম প্রেসিডেন্ট উড্রো উইলসন ৮ জানুয়ারি ১৯১৮ কংগ্রেসে একটি বক্তব্য প্রদান করেন, যাতে ছিল ইউরোপে শান্তি প্রতিষ্ঠার ও জাতিপুঞ্জ গঠনের আহ্বান। এ বক্তব্যটি ছিল ১৪ দফা বিশিষ্ট। তাঁর বক্তব্যের প্রথম দফা উন্মুক্ত কূটনীতি। ৯, ১২, ১৩ ও ১৪ নম্বর পয়েন্ট যথাক্রমে ইতালির সীমান্ত পুন:নির্ধারণ, তুরস্কের সমস্যাগুলোর সমাধান, স্বাধীন পোল্যান্ড রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠা এবং সকল রাষ্ট্রের রাজনৈতিক ও স্বাধীনতা রাজ্যসীমা নিরাপত্তা রক্ষায় জাতিপুঞ্জ গঠন।

 

১০৫. ১৭৮৩ সালে ভার্সাইতে কয়টি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়?

(ক) ২                             (খ) ৩

(গ) ৪                             (ঘ) ৫

 

উত্তর: () ৪

ব্যাখ্যা: ১৭৮৩ সালে ফ্রান্সের ভার্সাই নগরীতে চারটি চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়। যথা- গ্রেট ব্রিটেনের রাজা তৃতীয় জর্জের সাথে যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিনিধিদের শান্তি চুক্তি, ফ্রান্সের রাজা ঘোড়শ লুই- এর প্রতিনিধিগণ ও স্পেনের রাজা তৃতীয় চার্লসের মধ্যে স্বাক্ষরিত দুটি চুক্তি এবং ডাচ প্রজাতন্ত্রের রাজ্য প্রধানদের প্রতিনিধিদের মধ্যে চুক্তি। প্রথম চুক্তির মাধ্যমে যুক্তরাষ্ট্রের স্বাধীনতা যুদ্ধের পরিসমাপ্তি ঘটে।

 

১০৬. লাওসের (Laos) সরকারি নাম কি?

(ক) Laos People’s Democratic Republic         (খ) Republic of Laos

(গ) Kingdom of Laos                                              (ঘ) Democratic Republic of Laos

 

উত্তর: () Laos People’s Democratic Republic

ব্যাখ্যা: দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার একটি দেশ লাওস। ১২ অক্টোবর ১৯৪৫ দেশটি স্বাধীনতা লাভ করে। লাওসের সরকারি নাম Laos People’s Democratic Republic।

 

১০৭. নিচের কোন রাষ্ট্র সর্বাধিক রাষ্ট্রের সাথে সীমানাযুক্ত?

(ক) ভারত                       (খ) চীন

(গ) মিয়ানমার                   (ঘ) আফগানিস্তান

 

উত্তর: () চীন

ব্যাখ্যা: জনসংখ্যায় পৃথিবীর বৃহত্তম ও আয়তনে তৃতীয় বৃহত্তম রাষ্ট্র চীনের সাথে সর্বোচ্চ ১৪ টি দেশের সীমান্ত রয়েছে। চীনের সীমান্তবর্তী দেশগুলো হলো- লাওস, মায়ানমার, ভারত, পাকিস্তান, তাজিকিস্তান, কিরগিজস্তান, কাজাখস্তান, মঙ্গোলিয়া, রাশিয়া, উত্তর কোরিয়া, ভিয়েতনাম, নেপাল, ভুটান ও আফগানিস্তান।

 

১০৮. জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (UNDP)- এর শীর্ষ পদটি কি?

(ক) প্রশাসক                     (খ) মহাপরিচালক

(গ) মহাসচিব                    (ঘ) প্রেসিডেন্ট

 

উত্তর: () প্রশাসক

ব্যাখ্যা: জাতিসংঘ উন্নয়ন কর্মসূচি (UNDP)- এর শীর্ষপদ প্রশাসক। এ সংস্থাটি প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৬৫ সালে। এর সদর দপ্তর নিউইয়র্ক (যুক্তরাষ্ট্র)।

 

১০৯. জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় Greeen Climate Fund বিশ্বের দরিদ্র দেশগুলোর জন্য কি পরিমাণ অর্থ মঞ্জুর করেছে?

(ক) ৮০ বিলিয়ন ডলার                     (খ) ১০০ বিলিয়ন ডলার

(গ) ১৫০ বিলিয়ন ডলার                    (ঘ) ২০০ বিলিয়ন ডলার

 

উত্তর: () ১০০ বিলিয়ন ডলার

ব্যাখ্যা: ৭-১৮ ডিসেম্বর ২০০৯ ডেনমার্কের রাজধানী কোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত হয় COP-15 সম্মেলন। এ সম্মেলনই প্রথমবারের মতো বৈশ্বিক তাপমাত্রা ২ সেলসিয়াসে সীমিত রাখার ব্যাপারে ঐকমত্যে পৌঁছে বিশ্ব নেতৃবৃন্দ। আর উক্ত সম্মেলনে Greeen Climate Fund বিশ্বের দরিদ্র দেশগুলোকে ১০০ বিলিয়ন ডলার দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেয়।

 

১১০. যুক্তরাষ্ট্র কবে এককভাবে ABM (Anti-Ballistic Missile) চুক্তি থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে?

(ক) জুন ২০০১                  (খ) জুন ২০০০

(গ) জুন ২০০২                   (ঘ) জুন ২০০৩

 

উত্তর: () জুন ২০০২

ব্যাখ্যা: ABM (Anti-Ballistic Missile) চুক্তি স্বাক্ষরিত হয় ১৬ মে ১৯৭২। এ চুক্তির দুটি পক্ষ ছিল সোভিয়েত ইউনিয়ন (বর্তমান রাশিয়া) ও যুক্তরাষ্ট্র। ABM চুক্তি থেকে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র নিজেকে প্রত্যাহার করে ১৩ জুন, ২০০২।

 

১১১. আরব লীগ প্রতিষ্ঠা পায়μ

(ক) ১৯৪৯                        (খ) ১৯৫০

(গ) ১৯৪৫                        (ঘ) ১৯৪০

 

উত্তর: () ১৯৪৫

ব্যাখ্যা: আরব লীগ প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৪৫ সালের ২২ মার্চ। এর বর্তমান সদস্য সংখ্যা ২২। আরব লীগের মহাসচিব আহমেদ আবুল ঘেইত (১ জুলাই ২০১৬μ) এবং এর সদর দপ্তর অবস্থিত মিশরের কায়রোতে। ১৯৪৯ সালে গঠিত হয় ন্যাটো (NATO)। UNHCR প্রতিষ্ঠিত হয় ১৯৫০ সালে।

 

১১২. Yalta Conference- এর একটি লক্ষ্য ছিল:

(ক) বিশ্বযুদ্ধের কারণ নির্ণয়                (খ) জিব্রালটার প্রণালীর সুরক্ষা

(গ) জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠা                      (ঘ) যুদ্ধে ক্ষতিগ্রস্তদের ক্ষতিপূরণ প্রদান

 

উত্তর: () জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠা

ব্যাখ্যা: ৪-১১ ফেব্রুয়ারি ১৯৪৫ অনুষ্ঠিত রাশিয়ার ইয়াল্টা সম্মেলনের প্রধান লক্ষ্য ছিল যুদ্ধবিধ্বস্ত ইউরোপের পুনর্গঠন ও জাতিসংঘ প্রতিষ্ঠা।

 

১১৩. বর্তমান NAM- এর সদস্য সংখ্যাμ

(ক) ৩৩                          (খ) ১৫

(গ) ৭৭                            (ঘ) ২১

 

উত্তর: —

ব্যাখ্যা: NAM- এর বর্তমান সদস্য সংখ্যা ১২০ এবং সর্বশেষ এ সংস্থায় যোগদানকারী রাষ্ট্র আজারবাইজান ও ফিজি। ১৯৬১ সালে যুগোস্লাভিয়ার (বর্তমান সার্বিয়) বেলগ্রেড সম্মেলনের মধ্য দিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে যাত্রা শুরু করে NAM (Non-Aligned Movement)। এ সংস্থা গঠনের নেপথ্যের কান্ডারি ছিলেন সাবেক যুগোস্লাভিয়ার প্রেসিডেন্ট মার্শাল টিটো, ঘানার প্রেসিডেন্ট কাওয়ামে নক্রুমা, ভারতের প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহরু, মিশরের প্রেসিডেন্ট জামাল আবদেল নাসের ও ইন্দোনেশিয়ার প্রেসিডেন্ট ড. আহমেদ সুকর্ন।

 

১১৪. ‘War and Peace’ উপন্যাসের রচয়িতাμ

(ক) লিও টলস্টয়                (খ) ডেভিড রিকার্ডো

(গ) কার্ল মার্কস                  (ঘ) জেন অস্টিন

 

উত্তর: () লিও টলস্টয়

ব্যাখ্যা: বিশ্ববিখ্যাত রুশ ও ঔপন্যাসিক লিও টলস্টয় (১৮২৮-১৯৩০) এর শ্রেষ্ঠ উপন্যাসসমূহ হচ্ছে ‘War and Peace’, ‘Anna karenina’, ‘A Confession’, Resurrection ইত্যাদি। তার কিছু বিখ্যাত short story হচ্ছে ‘The Death, of Javan Ilych’, ‘Family Happiness’ এবং ‘Hadji Murad’।

 

১১৫. আন্তর্জাতিক রেড ক্রস- এর সদর দপ্তর:

(ক) ভিয়েনা                      (খ) জেনেভা

(গ) প্যারিস                       (ঘ) লন্ডন

 

উত্তর: () জেনেভা

ব্যাখ্যা: ২৪ জুন ১৮৫৯ ইতালির ‘সলফেরিনো’ নামক স্থানে ফ্রান্স ও অস্ট্রিয়ার মধ্যে ভয়াবহ যুদ্ধের প্রেক্ষাপটে- প্রতিষ্ঠিত হয় আন্তর্জাতিক রেডক্রস। এর প্রতিষ্ঠা সাল ৯ ফেব্রুয়ারি ১৮৬৩। এই সেবা সংস্থাটির সদর দপ্তর জেনেভায়। ILO, ITU, WMO, WIPO, WHO, WTO, UNHCR, UNCTAD, ITC, UNITAR প্রভৃতি সংস্থার সদর দপ্তর জেনেভায় অবস্থিত। কমনওয়েলথ, IMO, অক্সফাম ইন্টারন্যাশনাল, অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের সদর দপ্তর যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অবস্থিত। OPEC, IAEA, UNIDO, OSCE- এর সদর দপ্তর অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায়।

 

১১৬. IAEA- এর সদর দপ্তর হচ্ছে:

(ক) জেনেভা                     (খ) ভিয়েনা

(গ) ওয়াশিংটন                  (ঘ) প্যারিস

 

উত্তর: () ভিয়েনা

ব্যাখ্যা: International Atomic Energy Agency (IAEA) প্রতিষ্ঠিত হয় ২৯ জুলাই ১৯৫৭। এ সংস্থাটির প্রধানের পদমর্যাদা মহাপরিচালক। IAEA- এর সদর দপ্তর অস্ট্রিয়ার ভিয়েনায়। এছাড়া CTBTO, UNIDO, UNODC, OPEC ও OSCE- এর সদর দপ্তর ভিয়েনা।

 

১১৭. সার্ক প্রতিষ্ঠিত হয়:

(ক) ১৯৮২                       (খ) ১৯৮৫

(গ) ১৯৮৪                        (ঘ) ১৯৮৩

 

উত্তর‌: () ১৯৮৫

ব্যাখ্যা: SAARC (South Asian Association for Regional Co-operation) আনুষ্ঠানিকভাবে গঠিত হয় ১৯৮৫ সালের ৮ ডিসেম্বর। এ আঞ্চলিক সংস্থার সদর দপ্তর নেপালের কাঠমান্ডুতে অবস্থিত।

 

১১৮. জাতিসংঘ কোন বছর প্রতিষ্ঠিত হয়?

(ক) ১৯৪১                        (খ) ১৯৪৫

(গ) ১৯৪৮                        (ঘ) ১৯৪৯

 

উত্তর: () ১৯৪৫

ব্যাখ্যা: ২৬ জুন ১৯৪৫ স্বাক্ষরিত জাতিসংঘ সনদ একই বছর ২৪ অক্টোবর কার্যকরের মধ্য দিয়ে প্রতিষ্ঠিত হয় বিশ্ব শান্তি প্রতিষ্ঠার প্রতিভূ সংস্থা জাতিসংঘ। ১৯৪৫ সালে প্রতিষ্ঠিত আরো কিছু সংস্থা হলো বিশ্ব খাদ্য ও কৃষি সংস্থা (FAO), আন্তর্জাতিক আদালত, আরব লীগ। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO), আন্তর্জাতিক সমুদ্র সংস্থা (IMO), বেনেলাক্স (BENELUX) গঠিত হয় ১৯৪৮ সালে। ১৯৪৯ সালের ৪ এপ্রিল যাত্রা শুরু করে NATO।

 

১১৯. আলেপ্পো শহরটি কোথায় অবস্থিত?

(ক) মিশর                        (খ) ইরান

(গ) ইরাক                                    (ঘ) সিরিয়া

 

উত্তর: () সিরিয়া

ব্যাখ্যা: আলেপ্পো সিরিয়ার সবচেয়ে বড় শহর। এটি সিরিয়ার গভর্নরশাসিত প্রশাসনিক বিভাগ আলেপ্পোর রাজধানী। সিরিয়া-তুরস্ক সীমান্তবর্তী চেকপয়েন্ট বাব আল হাওয়ার ৪৫ কিলোমিটার পূর্বে অবস্থিত আলেপ্পোর প্রাচীন নাম খালপি বা খালিবন। ভুমধ্যসাগর থেকে এর দূরত্ব প্রায় ১২০ কিলোমিটার।

 

১২০. মাদার তেরেসা কোন দেশে জন্মগ্রহণ করেন?

(ক) ভারত                       (খ) আলজেরিয়া

(গ) আলবেনিয়া                  (ঘ) ফ্রান্স

 

উত্তর:—

ব্যাখ্যা: রোমান ক্যাথলিক সম্প্রদায়ভুক্ত বিশ্বখ্যাত সমাজসেবী মাদার তেরেসা ১৯১০ সালের ২৬ আগষ্ট তৎকালীন যুগোস্লাভিয়ার দক্ষিণ অঞ্চলে (বর্তমান মেসিডোনিয়ার রাজধানী স্কোপজে) একটি আলবেনীয় পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি ১৯২৮ সালে আয়ারল্যান্ডের ডাবলিন শহরে যান। সেখানে লরোটা কনভেন্টে সন্ন্যাসব্রত গ্রহণকরে ১৯২৯ সালে তিনি কলকাতায় আসেন। মাদার তেরেসা কলকাতার শিলাইদহ রেলস্টেশনের নিকটবর্তী ‘মিশনারিজ অব চ্যারিটি’ নামের একটি সেবামূলক প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলেন। আর্তমানবতার সেবার পুরষ্কার হিসেবে তিনি ১৯৭৯ সালে শান্তিতে নোবেল পান।

 

 

বিষয়: সাধারণ বিজ্ঞান

১২৫. ২০০৪ সালের ভয়ংকর সুনামি ঢেউয়ের গতি ছিল ঘণ্টায়μ

(ক) ১০০-২০০ কি.মি                      (খ) ৩০০-৪০০ কি.মি

(গ) ৭০০-৮০০ কি.মি                       (ঘ) ৯০০-১০০০ কি.মি

 

উত্তর: () ৭০০-৮০০ কি.মি

ব্যাখ্যা: শতাব্দীর ভয়াবহ সুনামি সংঘটিত হয় ২০০৪ সালের ডিসেম্বর। ইন্দোনেশিয়ার সুমাত্রার সন্নিকটে সাগরতলে ভূমিকম্পের ফলে সৃষ্ট সুনামিটি এশিয়া ও আফ্রিকা মহাদেশের ১৩টি দেশকে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্থ করে। হিরোশিমায় যে পারমাণবিক বোমা ফেলা হয়েছিল তার চেয়ে ২৩০০০ গুণ বেশি ক্ষমতাসম্পন্ন ভূমিকম্পের ফলেই ইতিহাসের এই ভয়াবহ সুনামি সংঘটিত হয়। তখন সুনামির ঢেউয়ের গতিবেগ ছিল একটি সাধারণ জোট বিমানের গতিবেগের সমান বা ৭০০ কিলোমিটারের বেশি।

 

১২৬. ফিশারিজ ট্রেনিং ইনস্টিটিউট কোথায় অবস্থিত?

(ক) ঢাকায়                                   (খ) খুলনায়

(গ) নারায়ণগঞ্জে                             (ঘ) চাঁদপুরে

 

উত্তর: () চাঁদপুরে

ব্যাখ্যা: ফিশারিজ ট্রেনিং ইনস্টিটিউট চাঁদপুর জেলায় অবস্থিত। লোনা পানির মাছ গবেষণা কেন্দ্র খুলনায় অবস্থিত। ময়মনসিংহ জেলায় অবস্থিত বাংলাদেশের মৎস্য গবেষণা ইনস্টিটিউটের পাঁচটি গবেষণা কেন্দ্র রয়েছে। এগুলোর অবস্থান হলো ময়মনসিংহ, চাঁদপুর, খুলনা, কক্সবাজার ও বাগেরহাট।

 

১২৭. সমুদ্রপৃষ্ঠ 45cm বৃদ্ধি পেলে ২০৫০ সাল নাগাদ বাংলাদেশে climate refugee হবে?

(ক) ৩ কোটি                                 (খ) ৩.৫ কোটি

(গ) ৪ কোটি                                  (ঘ) ৪.৫ কোটি

 

উত্তর: () ৩.৫ কোটি

ব্যাখ্যা: গত ১০০ বছরে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বেড়েছে ১০ থেকে ২৫ সেন্টিমিটার। মেরু অঞ্চলে এবং পর্বতশৃঙ্খের জমে থাকা বরফ দ্রুত গলতে থাকার কারণে জাতিসংঘের আন্ত:সরকার জলবায়ু পরিবর্তন প্যানেল (আইপিসিসি) এর মতে ২০৫০ সাল নাগাদ সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা ১ মিটার বাড়তে পারে। এতে বাংলাদেশের অন্তত ১৭ শতাংশ ভূমি তলিয়ে যাওয়ার সম্ভবনা রয়েছে। আর এর ফলে সরাসরি ক্ষতিগ্রস্থ হবে বাংলাদেশের ৩.৫ কোটি মানুষ।

 

১২৮. বায়ুমন্ডলের মোট শক্তির কত শতাংশ সূর্য হতে আসে?

(ক) ৯০ শতাংশ                             (খ) ৯৪ শতাংশ

(গ) ৯৮ শতাংশ                              (ঘ) ৯৯.৯৭ শতাংশ

 

উত্তর: () ৯৯.৯৭ শতাংশ

ব্যাখ্যা: সূর্য থেকে বিকিরণের মাধ্যমে পৃথিবী যে শক্তি ক্ষুদ্র তরঙ্গ আকারে পায় তাই সৌরশক্তি (Insolation)। ভূ-পৃষ্ঠের চার পাশে বেষ্টন করে যে বায়ুর আবরণ রয়েছে তাকে বায়ুমন্ডল বলে। এ বায়ুমন্ডলের মোট শক্তির ৯৯.৯৭ শতাংশই আসে সূর্য থেকে।

 

১২৯. বিশ্বব্যাংক অনুযায়ী ভবিষ্যতের জলবায়ুর পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাব মোকাবেলায় বিশ্ব সাহায্যের কত শতাংশ বাংলাদেশকে প্রদান করবে?

(ক) ৩০%                                   (খ) ৪০%

(গ) ৫০%                                                (ঘ) ৬০%

 

উত্তর: () ৩০%

 

১৩০. দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা নীতিমালা ২০১৫ কবে জারি করা হয়েছে?

(ক) ১ জানুয়ারি                              (খ) ১১ জানুয়ারি

(গ) ১৯ জানুয়ারি                             (ঘ) ২১ মার্চ

 

উত্তর: () ১৯ জানুয়ারি

ব্যাখ্যা: দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা আইন ২০১২ এর ক্ষমতাবলে সরকার দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা বিধিমালা ২০১৫ প্রণয়ন করে। যা ২০১৫ সালের ১৯ জানুয়ারি প্রজ্ঞাপন আকারে জারি করা হয়, এতে ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কতা ও হুশিয়ারি সংকেত হিসেবে সমুদ্রবন্দরের জন্য ১১ টি ও নদী বন্দরের জন্য ৪ টি সংকেত নির্ধারণ করা হয়।

 

১৩১. সুনামির কারণ হলোμ

(ক) ঘূর্ণিঝড়                                 (খ) চন্দ্র ও সূর্যের আকর্ষণ

(গ) সমুদ্রের তলদেশে ভূমিকম্প           (ঘ) আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যৎপাত

 

উত্তর: () সমুদ্রের তলদেশে ভূমিকম্প

ব্যাখ্যা: সমুদ্রের তলদেশে প্রবল ভূমিকম্প সংঘটিত হলে সমুদ্রপৃষ্ঠে প্রচন্ড ও ধ্বংসাত্মক বিশাল ঢেউয়ের সৃষ্টি হয়। এরূপ বিশাল সামুদ্রিক ঢেউগুলোকে সুনামি বলে।

 

১৩২. যেসব অণুজীব রোগ সৃষ্টি করে তাদের বলা হয়μ

(ক) প্যাথজেনিক                            (খ) ইনফেকশন

(গ) টক্সিন                                                (ঘ) জীবাণু

 

উত্তর: () প্যাথজেনিক

ব্যাখ্যা: যেসব অণুজীব রোগ সৃষ্টি করে তাদের বলা হয় প্যাথজেনিক। অন্যদিকে ইনফেকশন হলো সংক্রমণ। টক্সিন হলো বিষাক্ত পদার্থ এবং জীবাণু হলো ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র অনুজীব (microbiologists) যারা রোগ সৃষ্টি করতেও পারে, নাও পারে।

 

১৩৩. শিশুর মনস্তাত্ত্বিক চাহিদা পূরণে নিচের কোনটি জরুরি?

(ক) স্বীকৃতি                      (খ) স্নেহ

(গ) সাফল্য                       (ঘ) উল্লেখিত সবকটি

 

উত্তর: () উল্লেখিত সবকটি

ব্যাখ্যা: শিশুর মনস্তাত্ত্বিক চাহিদা পূরণে স্বীকৃতি, স্নেহ ও সাফল্য সবগুলোই দরকার। শিশুদের স্নেহ বা আদর করে, ছোট ছোট চাওয়াগুলোকে স্বীকৃতি দিয়ে ও সাফল্যগুলোকে অভিনন্দন জানিয়ে তাদের মনস্তাত্ত্বিক চাহিদা পূরণ করা যায়।

 

১৩৪. নিচের কোনটি আমিষ জাতীয় খাদ্য হজমে সাহায্য করে?

(ক) ট্রিপসিন                     (খ) লাইপেজ

(গ) টায়ালিন                     (ঘ) অ্যামাইলেজ

 

উত্তর: () ট্রিপসিন

ব্যাখ্যা: অগ্ন্যাশয় থেকে ‍নি:সৃত ‘অগ্ন্যাশয় রস’ হলো ট্রিপসিন। এটি প্রোটিন ও আমিষ জাতীয় খাদ্য পরিপাককারী এনজাইম। অন্যদিকে টায়ালিন ও অ্যামাইলেজ হলো শর্করা বা কার্বোহাইড্রেড জাতীয় খাদ্য পরিপাককারী এনজাইম। লাইপেজ হলো লিপিড বা স্নেহ জাতীয় খাদ্য পরিপাককারী এনজাইম।

 

১৩৫. বায়ুমন্ডলে শতকরা কতভাগ আর্গন বিদ্যমান?

(ক) ৭৮.০                        (খ) ০.৮

(গ) ০.৪১                         (ঘ) ০.৩

 

উত্তর: () ০.৮

ব্যাখ্যা: বায়ুমন্ডলের কিছু উপাদান ও শতকরা পরিমাণ হলো:

নাইট্রোজেন- ৭৮.০২%

আর্গন- ০.৮০%

জলীয়বাষ্প- ০.৪১%

কার্বন ডাই-অক্সাইড- ০.০৩%

সুতরাং বায়ুমন্ডলের শতকরা ০.৮ ভাগ আর্গন বিদ্যমান থাকে।

 

১৩৬. মানুষের রক্তে লোহিত কণিকা কোথায় সঞ্চিত থাকে?

(ক) হৃদযন্ত্রে                                 (খ) বৃক্কে

(গ) ফুসফুসে                                 (ঘ) প্লীহাতে

 

উত্তর: () প্লীহাতে

ব্যাখ্যা: মানুষের রক্তে লোহিত কণিকা প্লীহাতে সঞ্চিত থাকে। এখান থেকে তাৎক্ষণিক প্রয়োজনে লোহিত কণিকা রক্তরসে সরবরাহ হয়।

 

১৩৭. কোন যন্ত্রের সাহায্যে যান্ত্রিক শক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করা যায়?

(ক) ট্রান্সফরমার                             (খ) ডায়নামো

(গ) বৈদ্যুতিক মটর                         (ঘ) হুইল

 

উত্তর: () ডায়নামো

ব্যাখ্যা: ডায়নামো এমন একটি যন্ত্র যা যান্ত্রিক শক্তিকে বিদ্যুৎ শক্তিতে রূপান্তরিত করে। অন্যদিকে বৈদ্যতিক মটর, বৈদ্যতিক শক্তিকে যান্ত্রিক শক্তিতে রূপান্তরিত করে। ট্রান্সফরমার হলো রূপান্তরক যা উচ্চ বিভবকে নিম্ন বিভবে এবং নিম্ন বিভবকে উচ্চ বিভবে রূপান্তরিত করে।

 

১৩৮. ভাইরাসজনিত রোগ নয় কোনটি?

(ক) জন্ডিস                                   (খ) এইডস

(গ) নিউমোনিয়া                             (ঘ) চোখ ওঠা

 

উত্তর: () জন্ডিস

ব্যাখ্যা: নিউমোনিয়া হলো ব্যাকটেরিয়া জনিত রোগ। এই রোগের জীবাণুর নাম হলো streptococcus pneumoniae। এই রোগ সাধারণত ফুসফুসে হয়ে থাকে। অন্যদিকে জন্ডিস, এইডস এবং চোখ ওঠা হলো ভাইরাসজনিত রোগ।

 

১৩৯. প্রাণিজগতের উৎপত্তি ও বংশসম্মন্ধীয় বিদ্যাকে বলেμ

(ক) বায়োলজী                               (খ) জুওলজী

(গ) জেনেটিক                                (ঘ) ইভোলিউশন

 

উত্তর: () জেনেটিক

ব্যাখ্যা: জীববিজ্ঞানের যে শাখায় বংশগতির রীতিনীতি অর্থাৎ বংশানুক্রমিক গুণাবলির উৎপত্তি, প্রকৃতি, বৃদ্ধির সময় ও আচরণ সম্পর্কে আলোচিত হয়, সে শাখাকে বংশগতিবিদ্যা বা প্রাণীর উৎপত্তি, ধারাবাহিক পরিবর্তন ও বিকাশ সম্বন্ধে আলোচনা করা হয়।

 

১৪১. কোন জ্বালানি পোড়ালে সালফার ডাই-অক্সাইড বাতাসে আসে?

(ক) ডিজেল                                  (খ) পেট্রোল

(গ) অকটেন                                 (ঘ) সিএনজি

 

উত্তর: () ডিজেল

ব্যাখ্যা: ডিজেল বা গ্যাস অয়েলের কার্বন শিকলের দৈর্ঘ্য C13 থেকে C18 পর্যন্ত। ডিজেলকে পোড়ালে সালফার ডাইঅক্সাইড তৈরি হয়। অন্যদিকে পেট্রোল, অকটেন ও সিএনজি জ্বালানি রূপে পোড়ালে কার্বন ডাই-অক্সাইড গ্যাস তৈরি হয়। এদের কার্বন শিকলের দৈর্ঘ্য হলো, পেট্রোল= C5; অকটেন = C8 এবং সিএনজি (Compressed Natural Gas) = Cv যা ডিজেলের তুলনায় ছোট শিকল।

 

১৪২. মোবাইল টেলিফোনের লাইনের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হয়μ

(ক) শব্দশক্তি                                (খ) তড়িৎশক্তি

(গ) আলোকশক্তি                            (ঘ) চৌম্বকশক্তি

 

উত্তর: () তড়িৎশক্তি

ব্যাখ্যা: মোবাইল টেলিফোনের লাইনের মধ্য দিয়ে প্রবাহিত হওয়ার সময় শব্দশক্তি তড়িৎশক্তিতে রূপান্তরিত হয়। এই তড়িৎশক্তি আবার শব্দশক্তিতে রূপান্তরিত হয়ে শ্রোতার কানে পৌছায়। অতএব মোবাইল টেলিফোনের লাইনের মধ্য দিয়ে তড়িৎশক্তি প্রবাহিত হয়।

 

১৪৩. জীবজগতের জন্য সবচেয়ে ক্ষতিকর রশ্মি কোনটি?

(ক) আলফা রশ্মি                            (খ) বিটা রশ্মি

(গ) গামা রশ্মি                               (ঘ) আলট্রাভায়োলেট রশ্মি

 

উত্তর: () গামা রশ্মি

ব্যাখ্যা: জীবজগতের জন্য সবচেয়ে ক্ষতিকর রশ্মি হলো গামা রশ্মি। গামা রশ্মির ভেদন ক্ষমতা অন্য তেজস্ক্রিয় রশ্মি আলফা ও বিটা রশ্মির চেয়ে অনেক বেশি। গামা রশ্মি প্রায় কয়েক সেন্টিমিটার পর্যন্ত সীসা ভেদ করতে পারে। আলট্রাভায়োলেট বা অতিবেগুনি রশ্মি সূর্য থেকে আসে, যা তেজস্ক্রিয় রশ্মি থেকে কম ক্ষতিকর।

 

১৪৪. কোন রং বেশি দূর থেকে দেখা যায়?

(ক) সাদা                         (খ) কালো

(গ) হুলুদ                          (ঘ) লাল

 

উত্তর: () লাল

ব্যাখ্যা: লাল রঙের তরঙ্গ দৈর্ঘ্য সবচেয়ে বড় এবং বিক্ষেপণ সবচেয়ে কম। তাই লাল রং বেশি দূর থেকে দেখা যায়। অন্যদিকে সাদা ও কালো কোনো রং নয়। সবগুলো রং যেখান থেকে প্রতিফলিত হয় তাকে সাদা দেখা যায় এবং যেখানে সবগুলো রং শোষিত হয় তাকে কালো দেখা যায়। হলুদ রঙের তরঙ্গ দৈর্ঘ্য লাল ও কমলা রঙের তরঙ্গ দৈর্ঘ্য থেকে ছোট।

 

১৪৫. ক্যান্সার চিকিৎসায় ব্যাবহৃত গামা বিকিরণের উৎস হলোμ

(ক) আইসোটোন                            (খ) আইসোটোপ

(গ) আইসোবার                              (ঘ) রাসায়নিক পদার্থ

 

উত্তর: () আইসোটোপ

ব্যাখ্যা: ক্যান্সার চিকিৎসায় ব্যবহৃত গামা বিকিরণের উৎস হলো আইসোটোপ। সে সকল পরমাণুর প্রোটন সংখ্যা একই কিন্তু ভর সংখ্যা ভিন্ন তাকে আইসোটোপ বলে। ক্যান্সার চিকিৎসায় সাধারণত কোবাল্ট-৬০ (60Co) আইসোটোপ ব্যাবহৃত হয়।

 

১৪৬. নিচের কোন মেমোরীটি Non-volatile?

(ক) SRAM                              (খ) DRAM

(গ) ROM                                 (ঘ) উপরের সবগুলোই

 

উত্তর: () ROM

ব্যাখ্যা: বিদ্যুৎ প্রবাহ বন্ধ হয়ে গেলে সে সকল মেমোরিতে সংরক্ষিত ডেটা মুছে যায় তাদেরকে Volatile বা উদ্বায়ী মেমোরি বলে। এরূপ মেমোরি হলো- DRAM, SRAM, SD-RAM প্রভৃতি। অপরদিকে Non-volatile মেমোরি সেগুলো যাদের ক্ষেত্রে সংরক্ষিত ডেটা বিদ্যুৎ প্রবাহ বন্ধ হয়ে গেলেও মুছে যায় না। যেমন: ROM একটি অনুদ্বায়ী মেমোরি।

 

১৪৭. নিচের কোনটি 3G Language নয়?

(ক) C                                                   (খ) Java

(গ) Assembly Language               (ঘ) Machine Language

 

উত্তর: —

ব্যাখ্যা: যান্ত্রিক ভাষা (Machine Language) এবং অ্যাসেম্বলি ভাষাকে (Assembly Language) নিম্বস্তরের ভাষা হিসেবে অভিহিত করা হয়, যাদেরকে যথাক্রমে প্রথম এবং দ্বিতীয় প্রজন্মের ভাষা বলা হয়। পক্ষান্তরে, বেসিক (BASIC), সি, সি++, জাভা, প্যাসকাল, ফোরট্রান, কোবল ইত্যাদিকে উচ্চ স্তরের ভাষা হিসেবে অভিহিত করা হয়, যাকে তৃতীয় প্রজন্মের ভাষাও বলা হয়।

 

১৪৮. নিচের কোন উক্তিটি সঠিক?

(ক) ১ কিলোবাইট= ১০২৪ বাইট                     (খ) ১ মেগাবাইট= ১০২৪ বাইট

(গ) ১ কিলোবাইট= ১০০০ বাইট                      (ঘ) ১ মেগাবাইট= ১০০০ বাইট

 

উত্তর: () ১ কিলোবাইট= ১০২৪ বাইট

ব্যাখ্যা: ১ কিলোবাইট= ১০২৪ বাইট

১ মেগাবাইট= ১০২৪ কিলোবাইট = (১০২৪) বাইট।

 

১৪৯. Wi-fi কোন স্ট্যান্ডার্ট- এর উপর ভিত্তি করে কাজ করে?

(ক) IEEE 802.11                  (খ) IEEE 804.11

(গ) IEEE 803.11                   (ঘ) IEEE 806.11

 

উত্তর: () IEEE 802.11

ব্যাখ্যা: ওয়াই-ফাই বা ওয়্যার‌ল্যাস ফিডালিটি (Wireless Fidelity) হচ্ছে একটি জনপ্রিয় তারবিহীন প্রযুক্তি, যা রেডিও ওয়েভ ব্যবহার করে কোনো ইলেকট্রনিক ডিভাইসকে উচ্চগতিসম্পন্ন ইন্টারনেট সংযোগ কিংবা কম্পিউটার নেটওয়ার্কের মাধ্যমে ডেটা আদান প্রদান করে। এটি প্রযু্ক্তিগত ভাবে আইইইই ৮০২.১১ বি (IEEE 802.11B) নামে পরিচিত। এর একটি দ্রুততর সংস্করণ ৮০২.১১ জি, যার গতি ৫৪ এমবিপিএস।

 

১৫০. নিচের কোনটিতে সাধারণত ইনফ্রারেড ডিভাইস ব্যবহার করা হয়?

(ক) WAN                                (খ) Satelite Communication

(গ) MAN                                 (ঘ) TV রিমোর্ট কন্ট্রোলে

 

উত্তর: () TV রিমোর্ট কন্ট্রোলে

ব্যাখ্যা: যে সকল তড়িৎ চৌম্বক বিকিরণের তরঙ্গ দৈর্ঘ্যের সীমা ১ মাইক্রোমিটার থেকে ১ মিলিমিটার পর্যন্ত তাদের বলা হয় অবলোহিত বিকিরণ (Infrared) । এটি খালি চোখে দেখা যায় না। সাধারণত টিভি রিমোর্ট কন্ট্রোল, পিসির তারবিহিন কীবোর্ড ও মাউস ইত্যাদিতে এটি ব্যবহৃত হয়।

 

১৫১. (1011)2 + (0101)2 = ?

(ক) (1100)2                 (খ) (11000)2

(গ) (01100)2               (ঘ) কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () কোনোটিই নয়

ব্যাখ্যা: (1011)2 + (0101)2 =?

বাইনারি পদ্ধতিতে যোগ করে,

1011

0101

10000

.¶. (1011)2 + (0101)2 = (10000)2

 

১৫২. Wi Max- এর পূর্ণরূপ কী?

(ক) Worldwide Interoperability for Microwave Access

(খ) Worldwide Internet for Microwave Access

(গ) Worldwide Interconnection for Microwave Access

(ঘ) কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () Worldwide Interoperability for Microwave Access

ব্যাখ্যা: ওয়াইম্যাক্স (WiMax) শব্দটি ২০০১ সালের জুনে ওয়াইম্যাক্স ফোরাম কর্তৃক গঠিত হয়। এর পূর্ণরূপ হলো Worldwide Interoperability for Microwave Access। এটি এমন এক যোগাযোগ প্রযুক্তি যা বিস্তৃত ভৌগোলিক অঞ্চলে দ্রুতগতির তারবিহীন ইন্টারনেট সেবা প্রদান করে। শুরুতে এর গতিসীমা ছিল 30-40 mbps। ২০১১ সালে এর গতি 1024mbps পর্যন্ত এসেছে, যা জন্য একে বর্তমানে 4G প্রযুক্তিও বলা হয়|

১৫৪. 8086 কত বিটের মাইক্রো প্রসেসর?                 

(ক) 8                            (খ) 16

(গ) 32                          (ঘ) উপরের কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () 16

ব্যাখ্যা: ১৯৭৮ সালে তৈরিকৃত ইন্টেল ৮০৮৬ মাইক্রোপ্রসেসরটি ১৬ বিটের প্রথম মাইক্রোপ্রসেসর।

 

১৫৫. Mobile Phone- এর কোনটি input device নয়?

(ক) Keypad                           (খ) Touch Screen

(গ) Camera                           (ঘ) Power Supply

 

উত্তর: () Touch Screen

ব্যাখ্যা: মোবাইল ফোনে ডেটা ইনপুটের জন্য keypad, touch screen, camera, microphone ইত্যাদি input device ব্যবহৃত হয়। অপরদিকে power supply হলো কোনো বিদ্যুৎচালিত যন্ত্রে বিদ্যুৎশক্তি যোগানদাতা। এর সাহায্যে কোনো data input করা যায় না।

 

১৫৬. নিচের কোনটি ডাটাবেজ language?

(ক) Oracle                             (খ) C

(গ) MS-Word                        (ঘ) কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () কোনোটিই নয়

ব্যাখ্যা: বহুল ব্যবহৃত কিছু ডাটাবেজ language হলো: Oracle, MySQL, Sybase ইত্যাদি। Jaca, C, C+, C++ ইত্যাদি হলো প্রোগ্রামিং ল্যাংগুয়েজ। MS word হলো একটি word processing application software।

 

১৫৭. LinkedIn- এর ক্ষেত্রে কোনটি সঠিক?

(ক) এটি একটি বিজনেস অরিয়েন্টেড সোশ্যাল নেটওয়ার্কিং সার্ভিস                 (খ) এটি ২০০২ সালে প্রতিষ্ঠিত

(গ) ২০০৬ সালে এটির সদস্যসংখ্যা ২০ মিলিয়নের অধিক হয়                       (ঘ) উপরের সবগুলোই

 

উত্তর: () উপরের সবগুলোই

ব্যাখ্যা: ২০০২ সালের ডিসেম্বরে প্রতিষ্ঠিত লিংকডইন (LinkedIn) পেশাজীবীদের সামাজিক যোগাযোগের জন্য ব্যবহৃত একটি ওয়েবসাইট। বর্তমানে এর সদস্যসংখ্যা ৩০০ মিলিয়ন (প্রায়)।

 

১৫৮. কমিউনিকেশন সিস্টেমে গেটওয়ে কি কাজে ব্যবহার হয়?

(ক) বিভিন্ন নেটওয়ার্ক ডিভাইস সংযুক্ত করার কাজে                      (খ) দুই বা তার অধিক ভিন্ন ধরনের নেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করার কাজে

(গ) এটি নেটওয়ার্ক হাব কিংবা সুইচের মতই কাজ করে                  (ঘ) কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () দুই বা তার অধিক ভিন্ন ধরনের নেটওয়ার্ককে সংযুক্ত করার কাজে

ব্যাখ্যা: গেটওয়ে একটি নেটওয়ার্কের সাথে আরেকটি নেটওয়ার্ক যুক্ত করে। এটি বিভিন্ন প্রটোকলকে ব্যবহার করে বিভিন্ন এপ্লিকেশনের মধ্যে যোগাযোগ রক্ষা করে। একটি প্রটোকলের সাথে অন্য একটি প্রটোকল যুক্ত করতে হলে গেটওয়ে ব্যবহার করতে হয়।

 

১৫৯. নিচের কোনটি কম্পিউটারের প্রাইমারি মেমোরি?

(ক) RAM                                (খ) Hard Disk

(গ) Pen-drive                        (ঘ) কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () RAM

ব্যাখ্যা: যে মেমোরির সঙ্গে সিপিইউর অন্তর্গত ALU- র প্রত্যক্ষ অ্যাকসেস থাকে তাকে প্রাইমারি বা প্রধান মেমোরি বলে। বর্তমানে কম্পিউটারের মেমোরি বলতে প্রধান মেমোরিকেই বুঝায়। প্রাইমারি স্টোরেজ ডিভাইসের জন্য তিন ধরনের মেমোরি হলো-

১. Main Memory; ২. CPU Register ও ৩.Cache Memory।

প্রধান মেমোরির মধ্যে RAM- ই প্রধান। সকল ধরনের রিড/রাইট মেমোরি (DRAM, SRAM, SDRAM ইত্যাদি) ও রিড অনলি মেমোরি (ROM) প্রধান মেমোরির অন্তর্ভুক্ত। Pendrive, HDD অথবা CD-RW/DVD-RW সেকেন্ডারি স্টোরেজ ডিভাইস বা মেমোরি (Non-volatile)।

 

১৬০. Plotter কোন ধরনের ডিভাইস?

(ক) ইনপুট                                   (খ) আউটপুট

(গ) মেমোরি                                 (ঘ) উপরের কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () আউটপুট

ব্যাখ্যা: Plotter হলো একটি আউটপুট ডিভাইস। এটি প্রিন্টারের মতোই একটি ডিভাইস যা প্রিন্টিংয়ের জন্য কলমসদৃশ জিনিস ব্যবহার করে।

বিষয়: গণিত

 

১৬১. A= {x:x মৌলিক সংখ্যা এবং x≠ 5} হলে P(A) এর সদস্য সংখ্যা কত?

(ক) 8                (খ) 7

(গ) 6                 (ঘ) 3

 

উত্তর: () 8

ব্যাখ্যা: A = {2, 3, 5}

.¶. P(A) এর উপাদান সংখ্যা = 23                {¶.¶ A  এর উপাদান সংখ্যা 3}

= 8

 

১৬২. 12 টি পুস্তক থেকে 5টি কত প্রকারে বাছাই করা যায় যেখানে 2টি পুস্তক সর্বদাই অন্তর্ভুক্ত থাকবে?

(ক) 252                       (খ) 792

(গ) 224                        (ঘ) 120

 

উত্তর: () 120

ব্যাখ্যা: 12টি পুস্তক হতে 5টি বাছাই করা যায় যেখানে 2টি পুস্তক সর্বদাই অন্তর্ভুক্ত থাকে তা হচ্ছে 10C3= 120

১৬৪.  ৩৫০ টাকা দরে ৩ কেজি মিষ্টি কিনে ৪ টাকা হারে ভ্যাট দিলে মোট কত টাকা ভ্যাট দিতে হবে?

(ক) ১৪ টাকা                    (খ) ৪২ টাকা

(গ) ১২ টাকা                     (ঘ) ১০৫ টাকা

১৬৫. যদি তেলের মূল্য ২৫% বৃদ্ধি পায় তবে তেলের শতকরা কত কমালে তেল বাবদ ব্যয় বৃদ্ধি পাবে না?

(ক) ১৬%                        (খ) ২০%

(গ) ২৫%                                    (ঘ) ২৪%

১৬৫. যদি তেলের মূল্য ২৫% বৃদ্ধি পায় তবে তেলের শতকরা কত কমালে তেল বাবদ ব্যয় বৃদ্ধি পাবে না?

(ক) ১৬%                        (খ) ২০%

(গ) ২৫%                                    (ঘ) ২৪%

১৬৯. যদি (25)2x+3 = 53x+6 হয় তবে x = কত?

(ক) 0                            (খ) 1

(গ) -1                           (ঘ) 4

 

উত্তর: () 0    

ব্যাখ্যা: (25)2x+3 = 53x+6

বা, ( )2x+3 = 53x+6

বা, 54x+3 = 53x+6

বা, 4x+3 = 3x+6

বা, 4x- 3x = 6-6

.¶. x =0

 

১৭০. ‍চিত্র অনুসারে O কেন্দ্র বিশিষ্ট বৃত্তে DABC অন্তর্লিখিত। Ðy = 1120 হলে Ðx = কত?

(ক) 680                        (খ) 340

(গ) 450                         (ঘ) 390

 

উত্তর:  () 340

ব্যাখ্যা: DABC এর বহিঃস্থ ÐAOB = ÐOBC + ÐOCB

এখন, ÐAOB + Ðy = 1800

বা, x+ x + y = 1800                                                                                                      

বা, 2x = 1800– 1120

বা, x= 680/2

.¶. x = 340

১৭২. DABC এ ÐA = 400, ÐB= 700, হলে DABC কি ধরণের ত্রিভুজ?

(ক) সমকোণী                               (খ) স্থূলকোণী

(গ) সমদ্বিবাহু                                (ঘ) সমবাহু

 

উত্তর: () সমদ্বিবাহু      

ব্যাখ্যা: DABC এ-

ÐA+ÐB+ÐC= 1800

বা, 400+700+ÐC= 1800

বা, ÐC= 1800 – 1100

.¶. ÐC= 700

.¶. DABC একটি সমদ্বিবাহু ত্রিভুজ।

 

১৭৩. x2+y2= 185, = 3 এর একটি সমাধান হলো:

(ক) (7, 3)                                 (খ) (9, 6)

(গ) (10, 7)                                (ঘ) (11, 8)

.¶. x+y = 19

x-y =   9

x+y= 19

[(+) করে] 2x = 22

.¶. x = 11

এবং y = 8

.¶. (x,y) =(11, 8)

১৭৬. ১+৫+৯+……..+৮১= কত?

(ক) ৯৬১                         (খ) ৮৬১

(গ) ৭৬১                          (ঘ) ৬৬১

ব্যাখ্যা: এখানে ইংরেজি বড় হাতের বর্ণগুলোকে এক অক্ষর পরপর সাজানো হয়েছে এবং প্রথম অক্ষর দুটির গাণিতিক অঙ্কগুলোর যোগফল হবে তৃতীয় তৃতীয় অক্ষরটির গাণিতিক অঙ্ক।

.¶. প্রশ্নবোধক স্থানে হবে K8

 

১৭৮. যদি, ৫+৩= ২৮

          ৯+১= ৮১০

          ২+২= ১২ হয় হবে,

          ৫+৪= ?

(ক) ১৮                           (খ) ১৯

(গ) ২০                            (ঘ) ২১

 

উত্তর: () ১৯

ব্যাখ্যা: অঙ্কদ্বয়ের যোগফলের প্রথম অঙ্কটি হবে অঙ্কদ্বয়ের বিয়োগফল এবং দ্বিতীয় অঙ্কটি হবে অঙ্কদ্বয়ের যোগফল। যথা-

৫-৩=২ এবং ৫+৩= ৮

.¶. ৫-৪= ১ এবং ৫+৪= ৯

.¶. সংখ্যাটি হবে ১৯।

 

১৭৯. ইংরেজি বর্ণমালার ধারাবাহিকভাবে ১৮তম অক্ষরের বামদিকের ১০ তম অক্ষর কোনটি?

(ক) H                           (খ) S

(গ) F                            (ঘ) J

 

উত্তর: () H

ব্যাখ্যা:

A         B         C         D

E         F         G         H

(10)

I           J           K         L

M        N         O         P

Q         R         S         T

(18)

.¶. অক্ষরটি হবে H

 

১৮১. ৩, ৭, ৪, ১৪, ৫, ২১, ৬ ধারার অষ্টম সংখ্যাটি কত হবে?

(ক) ৬                           (খ) ৭

(গ) ২৮                           (ঘ) ২৯

 

উত্তর: () ২৮

ব্যাখ্যা: এখানে দুটি ধারা বিদ্যমান।

প্রথমটি: ৩            ৪          ৫          ৬

দ্বিতীয়টি: ৭           ১৪         ২১         ২৮

.¶. অষ্টম সংখ্যাটি হবে ২৮।

 

১৮২. দুটি সমান্তরাল রেখা কটি বিন্দুতে ছেদ করে?

(ক) ৪                             (খ) ২

(গ) ৮                             (ঘ) ১৬

 

উত্তর: —

ব্যাখ্যা: দুটি সরলরেখার মধ্যবর্তী দূরত্ব যখন সর্বদা একই থাকে তখন একটিকে অপরটির সমান্তরাল রেখা বলা হয়।

.¶. দুটি সমান্তরাল রেখা কখনও একটিকে অপরটি ছেদ করে না।

 

১৮৩. কোনটি ‘প্রদত্ত চিত্র’- এর আয়নার প্রতিফলন?

 

উত্তর: (খ)

 

১৮৪. ভারসাম্য রক্ষা করতে নিচের চিত্রে বাম দিকে কত ওজন রাখতে হবে?

(ক) ৪ কেজি                     (খ) ৬ কেজি

(গ) ৮ কেজি                     (ঘ) ১০ কেজি

১৮৭. আয়না থেকে ২ ফুট দূরত্বে দাঁড়িয়ে, আয়নাতে আপনার প্রতিবিম্ব কতদূর দেখা যাবে?

(ক) ৫ ফুট                       (খ) ৪ ফুট

(গ) ৩ফুট                         (ঘ) ২ফুট

 

উত্তর: () ২ফুট

ব্যাখ্যা: সমতল দর্পণে লক্ষ্যবস্তু দর্পণ থেকে যতদূরে থাকে বস্তুর প্রতিবিম্ব দর্পণ থেকে ততদূরে গঠিত হয়।

.¶. আয়নাতে প্রতিবিম্বটি ২ ফুট দূরে দেখা যাবে।

 

১৮৮. ২- এর কত শতাংশ ৮ হবে?

(ক) ২০০                         (খ) ৪০০

(গ) ৩৪৫                         (ঘ) ৩০০

১৮৯. প্রশ্নবোধক স্থানে (?) কোনটি বসবে?

৩, ১০, ৯, ৮, ২৭, ৬, ৮১, ৪, ২৪৩ (?)

(ক) ২                             (খ) ৪

(গ) ১৫                            (ঘ) ১২

 

উত্তর: () ২

ব্যাখ্যা: এখানে দুটি ধারা বিদ্যমান।

প্রথমটি: ৩            ৯          ২৭         ৮১         ২৪৩

দ্বিতীয়টি: ১০         ৮          ৬          ৪          ২

 

১৯০. প্রশ্নবোধক চিহ্নিত স্থানে কোন সংখ্যাটি বসবে?

(ক) 36                         (খ) 32

(গ) 31                          (ঘ) 40

 

উত্তর: () 31

ব্যাখ্যা: ১ম ক্ষেত্রে 15+15= 30

30+15= 45

৩য় ক্ষেত্রে, 21+7= 28

28+7= 35

২য় ক্ষেত্রে, 19+6= 25

25+6= 31

 

মানসিক দক্ষতা

১৯১. নৈতিকভাবে বলা হয় মানবজীবনের-

(ক) নৈতিক শক্তি                           (খ) নৈতিক বিধি

(গ) নৈতিক আদর্শ                           (ঘ) সবগুলোই

 

উত্তর: () নৈতিক আদর্শ

ব্যাখ্যা: ধর্ম, ঐতিহ্য এবং মানব আচরণ এই তিনটি থেকেই নৈতিকতার উদ্ভব। শুভর প্রতি অনুরাগ ও অশুভর প্রতি বিরাগই হচ্ছে নৈতিকতা। ভালো-মন্দ আচরণ, স্বচ্ছতা, সততা ইত্যাদির সাথে সম্পর্কযুক্ত একটি বিশেষ গুণ হলো নৈতিকতা। প্রত্যেক ব্যক্তিই আইন বা অন্যান্য বিষয়ের উপর একে প্রাধান্য দেয়। তাই নৈতিকতাকে বলা হয় মানবজীবনের নৈতিক আদর্শ্য।

 

১৯২. ‘Power: A New Social Analysis’ গ্রন্থটি কার লেখা?

(ক) ম্যাকিয়াভেলি                          (খ) হবস

(গ) লক                                       (ঘ) রাসেল

 

উত্তর: () রাসেল

ব্যাখ্যা: ‘Power: A New Social Analysis’ হলো দার্শনিক বার্ট্রান্ড রাসেলের একটি বিখ্যাত গ্রন্থ। এটি প্রকাশিত হয় ১৯৩০ সালে। এই গ্রন্থে তিনি যক্তি দেখিয়েছেন মানুষের সর্বশেষ ও সর্বোচ্চ লক্ষ্য হলো ক্ষমতা।

 

১৯৩. ‘সুবর্ণ মধ্যক’ হলোμ

(ক) গাণিতিক মধ্যমান                                 (খ) দুটি চরমপন্থার মধ্যবর্তী পন্থা

(গ) সম্ভাব্য সব ধরনের কাজের মধ্যমান             (ঘ) একটি দার্শনিক সম্প্রদায়ের নাম

 

উত্তর: () দুটি চরমপন্থার মধ্যবর্তী পন্থা

ব্যাখ্যা: ‘সুবর্ণ মধ্যক’ হলো একটি দার্শনিক প্রতিশব্দ। ইংরেজিতে এটি হলো Golder Mean। এরিস্টিটল দুটি চরমপন্থার মধ্যবর্তী অবস্থাকে সুবর্ণ মধ্যক (Golder Mean) বলেছেন। যেমন: একদিকে খুবই প্রাচুর্য অন্যদিকে খুবই অভাব। এই দুই অবস্থার মাঝামাঝি হলো ‘সুবর্ণ মধ্যক’।

 

১৯৪. নৈতিক আচরণবিধি (Code of ethics) বলতে বুঝায়-

(ক) মৌলিক মূল্যবোধ সংক্রান্ত সাধারণ বচন যা সংগঠনের পেশাগত ভূমিকাকে সংজ্ঞায়িত করে

(খ) বাস্তবতার নিরিখে নির্দিষ্ট আচরণের মানদন্ড নির্ধারণ সংক্রান্ত আচরণবিধি

(গ) দৈনন্দিন কার্যকলাপ ত্বরান্বিত করণে প্রণীত নৈতিক নিয়ম, মানদন্ড বা আচরণবিধি

(ঘ) উপরের তিনটিই সঠিক

 

উত্তর: () উপরের তিনটিই সঠিক

ব্যাখ্যা: নৈতিক আচরণবিধি (Code of ethics) বলতে বুঝায় কোনো প্রতিষ্ঠান বা সংস্থার কর্মকর্তা, কর্মচারীদের পেশাগত দৈনন্দিন দায়িত্ব ও কর্তব্যের পরিচিতি ও প্রযোজ্য নিয়মনীতি। বাস্তবতার নিরিখে সকল প্রতিষ্ঠানের নৈতিক আচরণবিধি এক নাও হতে পারে।

 

১৯৫. ব্যক্তিগত মূল্যবোধ লালন করেμ

(ক) সামাজিক মূল্যবোধকে                            (খ) গণতান্ত্রিক মূল্যবোধকে

(গ) ব্যক্তিগত মূল্যবোধকে                             (ঘ) স্বাধীনতার মূল্যবোধকে

 

উত্তর: () স্বাধীনতার মূল্যবোধকে

ব্যাখ্যা: ব্যক্তিগত মূল্যবোধ হলো ব্যক্তির স্বতন্ত্র মূল্যবোধ। এই মূল্যবোধে ব্যক্তির স্বাধীনতাকে লালন করা হয়। যদিও নির্দিষ্ট কোনো গোষ্ঠী, সংস্কৃতি, ধর্ম, রাজনৈতিক দল, পরিবার, বন্ধু-বান্ধব, জাতীয়তা, ইতিহাস প্রভৃতি ব্যক্তিগত মূল্যবোধ গঠনে সাহায্য করে। তথাপি সময়ের পরিবর্তনের সাথে সাথে নিজস্ব অর্জিত জ্ঞান ও দৃষ্টিভঙ্গির উপর ভিত্তি করে ব্যক্তিগত মূল্যবোধ প্রতিষ্ঠা লাভ করে। যেখানে অন্যান্য মূল্যবোধ থেকে ব্যক্তিগত মূল্যবোধের প্রধান পার্থক্য হলো ব্যক্তির স্বাধীনতা বা স্বকীয়তা। তাই সমাজের এক এক ব্যক্তির মূল্যবোধ এক এক রকম।

 

১৯৬. মূল্যবোধ শিক্ষার অন্যতম লক্ষ্য হচ্ছে-

(ক) দূর্নীতি রোধ করা                                   (খ) সামাজিক অবক্ষয় রোধ করা

(গ) রাজনৈতিক অবক্ষয় রোধ করা                    (ঘ) সাংস্কৃতিক অবরোধ রক্ষণ করা

 

উত্তর: () সামাজিক অবক্ষয় রোধ করা

ব্যাখ্যা: যে চিন্তাভাবনা, লক্ষ্য, উদ্দেশ্য ও সংকল্প মানুষের সামগ্রিক আচার আচরণ ও কর্মকান্ডকে নিয়ন্ত্রণ ও পরিচালিত করে তাকে মূল্যবোধ বলে। এই মূল্যবোধের শিক্ষার প্রধান লক্ষ্য সামাজিক অবক্ষয় রোধ করা।

 

১৯৭. সুশাসন হচ্ছে এমন এক শাসন ব্যবস্থা যা শাসক ও শাসিতের মধ্যেμ

(ক) সুসম্পর্ক গড়ে তোলা                              (খ) আস্থার সম্পর্ক গড়ে তোলা

(গ) শান্তির সম্পর্ক গড়ে তোলা                         (ঘ) কোনোটিই নয়

 

উত্তর: () আস্থার সম্পর্ক গড়ে তোলা

ব্যাখ্যা: সুশাসন বলতে রাষ্ট্রের সাথে সুশীল সমাজের, সরকারের সাথে শাসিত জনগণের শাসকের সাথে শাসিতের সম্পর্ককে বুঝায়। সম্পর্ক হতে পারে কয়েক ধরনের। তবে যেহেতু প্রশাসনের জবাবদিহিতা, বৈধতা, স্বচ্ছতা, বাক স্বাধীনতা, বিচার বিভাগের স্বাধীনতা, আইনের অনুশাসন প্রভৃতি ছাড়া একটি দেশের সুশাসন ভাবা যায় না, তাই সুশাসন ব্যবস্থায় শাসক ও শাসিতের আস্থার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এই আস্থার সম্পর্ক যত শক্তিশালী হবে, সুশাসন তত মজবুত হবে।

 

১৯৮. সুশাসনের পূর্বশর্ত হচ্ছেμ

(ক) অর্থনৈতিক উন্নয়ন                                 (খ) অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন

(গ) সামাজিক উন্নয়ন                                   (ঘ) সবগুলোই

 

উত্তর: () অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন

ব্যাখ্যা: সুশাসনের পূর্বশর্ত হচ্ছে অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন। অর্থনৈতিক ও সামাজিক উন্নয়ন ছাড়া সুশাসন প্রতিষ্ঠা সম্ভবপর হয় না। প্রশ্নের (ক) ও (গ) নং অপশন (খ) নং অপশন এ থাকায় সঠিক উত্তর (খ)। ঘ নং অপশনটি যদিও ভিন্ন কিছু নয়, কিন্তু আইকিউ বিবেচনায় সেটি ভুল হবে।

 

১৯৯. একজন জনপ্রশাসকের মৌলিক মূল্যবোধ হলোμ

(ক) স্বাধীনতা                                (খ) ক্ষমতা

(গ) কর্মদক্ষতা                               (ঘ) জনকল্যাণ

 

উত্তর: () জনকল্যাণ

ব্যাখ্যা: একজন জনপ্রশাসকের মৌলিক মূল্যবোধগুলো হলো সততা, ন্যায়পরায়ণতা, স্বচ্ছতা, জবাবদিহিতা প্রভৃতি। তবে সবগু্লোই জনকল্যাণকে কেন্দ্র করে পরিচালিত হওয়ায় জনকল্যাণই হবে একজন জনপ্রশাসকের প্রধান মৌলিক মূল্যবোধ।

 

২০০. সুশাসনের পথে অন্তরায়μ

(ক) আইনের শাসন                         (খ) জবাবদিহিতা

(গ) স্বজনপ্রীতি                               (ঘ) ন্যায়পরায়ণতা

 

উত্তর: () স্বজনপ্রীতি

ব্যাখ্যা: সুশাসনের অন্তরায়গুলো হলো- স্বজনপ্রীতি, দুর্নীতি, অনিয়ম ইত্যাদি। অন্যদিকে আইনের শাসন, জবাবদিহিতা ও ন্যায়পরায়ণতা হলো সুশানের বৈশিষ্ঠ্য।

 

No comments found.