Engineer's Solutions

The Site is Engineering and Science Related

Google Adsense Approval

Google Adsense Approval পাওয়ার করণীয়

Md. Sazzad Hossain April 17, 2020

Google Adsense Approval পাওয়ার  করণীয়ঃ

Google Adsense Approval পাওয়ার আগে চলুন আগে জানা যাক Google Adsense আসলে কি?

আমরা সবাই জানি, একটি Blog/Website থেকে আয় করার সব থেকে লাভজনক  এবং সহজ উপায়  হলো Google Adsense।

Adsense এমন কিছু Optimization Techniquer ব্যবহার করে Blog/Website এ বিজ্ঞাপন দেখায়, যার ফলে কম থেকে কম ট্রাফিক থাকলেও অধিক টাকা আয়ের সুযোগ পাবেন।

আপনার  লেখালেখি করার অভ্যাস আছে।  সেই অভ্যাস থেকে একটি ব্লগ তৈরি করে সেখানে আপনি আপনার লেখা লেখছেন।

জানেন কি আপনি আপনার Blog/Website থেকে সহজে আয় করতে পারেন।

প্রশ্ন করতে পারেন, কিভাবে আয় করা সম্ভব? তার উত্তর Google Adsense.!

Google Adsense Approval

আপনি হয়তো Google Adsense এখন পর্যন্ত Apply করেন নি কিংবা অনেবার চেষ্টা করে হয়তো Google Adsense  Approval পাননি, যার ফলে আপনার লেখা  গুলো বিনামুল্যেই মানুষ পড়ছে। আপনি আপনার লেখার যথোপযুক্ত সম্মানী পাচ্ছেন না।

তবে আসুন জেনে নেই, Google Adsense Approval পাওয়ার আগে বিশেষ কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য যা আপনাকে Google Adsense Approval পেতে সাহায্য করবে।

কপিরাইট কনটেন্ট পরিহার করুনঃ

Blog/Website এ লেখার শুরুতেই মনে রাখতে হবে একটি সিংগেল লাইন ও Copy Paste  করা যাবে না। আপনার লেখায় যেমন আপনার অধিকার আছে তেমনি এক জনের লেখাতে তার ও অধিকার রয়েছে।

কারো লেখা চুরি করে আপনার নামে চালিয়ে দেওয়ার কোন অধিকার আপনার নেই।

Google এই বিষয়ে অনেক সচেতন, তাই কোন ভাবে এক জনের লেখা চুরি করে নিজের Blog/Website এ প্রকাশ করা যাবে না Copy Paste করার অভ্যাস থাকলে পরিহার করুন।

যদি ১ মাস বা তার বেশি সময় লাগে তবুও আপনার লেখা পাবলিশ করুন তবুও Copy Paste পরিহার করুন।

পোস্টের আকার

আপনি একটি ১৫০/২০০ শব্দের পোস্ট লিখলেন। তারপর একটু ভাবুন তো, মাত্র ১৫০/২০০ শব্দে কি মনের ভাব সম্পূর্ণ হয়?

একটি Blog/Website  সাধারণত খোলামেলা আলোচনা থাকে। আপনি যখন  একটা লেখা পাবলিশ করতে যাচ্ছেন তখন মনে রাখতে হবে। এটি একটি Blog, Facebook এর Post না।

Blog পোস্ট গুলি সর্বনিম্ন ৫০০ শব্দের হয়ে থাকে । যদিও এটি কোন ব্লগের শব্দ সংখ্যা স্ট্যান্ডার্ন্ড মান না, তারপরেও মোটামুটি ৫০০ থেকে ৮০০ শব্দের Blog গুলো মাঝামাঝি আকারের বলা যায়।

আপনি ইচ্ছা করলে ১০০০ বা ততোধিক শব্দেরও লিখতে পারেন। মনে রাখবেন সব চাইতে গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার আপনার Blog টি  অবশ্যই Blog এর মতো হতে হবে।

Top লেভেল ডোমেইন থাকতে হবে

আপনি যে Blog/Website চালান সেটি দুই ধরনের ডোমেইন থাকতে পারে। প্রথমত, Yourname.com অথবা Yourname.blogspot.com।

দ্বিতীয় যে ডোমেইন টি দেখছেন এটি একটি ফ্রী সাব ডোমেইন। এটি Blogspot এর পরিবর্তে WordPress ও হতে পারে।

তবে যাই হোক না কেনো, এরকম সাব ডোমেইন দিয়ে আপনি কখনোই Google Adsense Approval পাবেন না।

সেক্ষেত্রে আপনাকে একটি টপ লেভেল ডোমেইন কিনে Blog/Website এ সেটআপ করবেন তা নিয়ে টিউটোরিয়াল কলামে আলোচনা করা আছে।

অবশ্য আরেকটি কথা মনে রাখবেন, টপ লেভেল ডোমেইনের ক্ষেত্রে ডট কম, ডট নেট এবং ডট অর্গ এই তিনটি অগ্রাধিকার পেয়ে থাকে।

সুতরাং ডোমেইন কিনতে চাইলে অবশ্যই এই তিনটির মধ্যে কেনার চেষ্টা করবেন।

অত্যাবশ্যকীয় কিছু পেজ

অনেক সময় আপনারা Blog/Website তৈরী করেই পোস্ট করা শুরু করেন।

অনেকের দেখা যায়, শতকের উপরে কন্টেন্ট পোস্ট করেও Google Adsense Approval পান না।

তার প্রধান কারণ আপনার Blog/Website টি Google এর কাছে নির্ভরযোগ্য নয়।

Google আপনাকে বিশ্বাস করে না যে আপনার Website টি একটি নির্দিষ্ট অস্তিত্ব বহন করে।

এর সমাধান কি?

এর সমাধান হলো, আপনার Blog সাইটে অবশ্যই চারটি পেজ থাকা বাধ্যতামূলক।

 Contact

আপনার Blog এ অবশ্যই আপনার সাথে কন্টাক্ট করা যায় এমন একটি পেজ তৈরি করতে হবে।

পৃথিবীর যেকোন Website এ যান, তাদের সাথে কন্টাক্ট করার জন্য একটা পেজ আপনি দেখতে পাবেন।

Google মনে করে যদি কন্টাক্ট পেজ না থাকে তাহলে আপনার Website এর অস্তিত্ব টা কার হাতে?

Google কে এমন প্রশ্নে ফেলা নিশ্চয় উচিৎ নয়।

About

আপনার Websiteটি কি রিলেটেড এবং এই Website এর উদ্দ্যেশ্য কি?

এই সম্পর্কিত একটি পেজ অবশ্যই তৈরী করে রাখতে হবে।

আপনার উদ্দ্যেশ্য জানা না থাকলে Google আপনাকে কেন Adsense Approval দিবে?

অবশ্যই আপনাকে আপনার পেজে About বা সম্পর্ক রিলেটেড পেজ রাখতে হবে।

Terms and Condition

আপনার Blog/Website এর নির্দিষ্ট কিছু শর্ত না থাকলে Google কোনভাবেই বুঝবে না যে, আপনার কন্টেন্ট গুলো পড়ার ক্ষেত্রে কতটা উম্মুক্ত ।

অর্থাৎ আপনার লেখাগুলো কেউ যদি Copy করতে চায়, আপনি সেটা কিভাবে নিবেন ইত্যাদি।

তার জন্য অবশ্যই Google কে জানাতে হবে।

সাথে সাথে আপনার ভিজিটরদের নিশ্চিত করতে হবে যে, কেউ চাইলে Copy Paste করার অধিকার রাখে না।

Privacy Policy

আপনার Website/Blog এর নিরাপত্তা দেওয়ার দায়িত্ব আপনার।

একজন ভিজিটর আপনার সাইটে এসে যদি নিরাপত্তা না পায় তাহলে ভিজিটররা কেনো আপনার Blog/Website এ আসবে?

এই ব্যাপার টা নিশ্চিন্ত হতে চায় Google.

সুতরাং এই নিশ্চয়তা প্রদানে আপনাকে অবশ্যই একটি Privacy পেজ তৈরী করতে হবে যেন, Google এবং ভিজিটর উভয়ই নিশ্চিত হতে পারে যে, আপনার Website টি নিরাপদ।

Google Adsense Approval পেতে ভিজিটর কতো লাগেঃ

এই প্রশ্ন হয়তো অনেকের মনে দানা বাধে যে, Adsense Approval পেতে প্রতিদিন গড়ে কতো ভিজিটর প্রয়োজন?

আসলে সত্যি বলতে Google Adsense এর কথা কোথাও উল্লেখ্য নেই যে Google Adsense Approval আপনাকে নির্দিষ্ট একটা সংখ্যক ভিজিটর পেতে হবে।

সুতরাং এই ব্যাপার টি এক প্রকার গোপনীয় বলা চলে । মনে রাখবেন ভিজিটর মুখ্য নয় বরং আপনার Blog/Website এর গঠন টা মুখ্য।

Blog/Website এর বয়সঃ

অনেকেই আছেন আজকে Blog/Website Open করে পরের দিনই সেই Blog/Website এ Adsense Approval পাওয়ার জন্য Application করেন।

বিষয় টা অন্য রকম হয়ে গেলো না? আজ কে গাছ  লাগিয়ে পরের দিন ফল খাওয়ার আশা করা টা বোকামি নয়?

Google Adsense Approval এর ক্ষেত্রে বাংলাদেশ, ভারত, এবং চীনের বয়স সাধারণত ৬ মাস হবে তবে এটি নির্দিষ্ট নয়।

আপনার Blog যদি উপরের সকল তথ্য পূরণ করে থাকে  তবে ২/৩ মাস এর মধ্যে Approval পেয়ে যেতে পারে।

তবে ১/২ মাসের মধ্যে Approval পেতে চাইবেন না।

পোস্টের সংখ্যা

পোস্ট সংখ্যা এমন হতে হবে যেন বুঝা যায় এটি একটি প্রফেশনাল ব্লগারের ব্লগ বা Website.

আপনার Blog এ যদি ২ বা ৩ টি পোস্ট থাকে তাহলে কোন ভাবেই বলা যাবে না যে আপনি একজন প্রফেশনাল Bloger।

এজন্য আপনাকে আপনার Blog এ ২০ এর অধিক পোস্ট রেখে তারপর Google Adsense Approval এর জন্য আবেদন করতে হবে।

সাইটে কি Google এর ছবি ব্যবহার করতে পারবো?

Website এ আপনি Google এর ফ্রী ছবি ছাড়া দিতে পারবেন না।

Website এ Copyright মুক্ত ছবি ব্যবহার করুন। সব সময় Website এ Copyright মুক্ত ব্যবহার করুন।

যদি Google থেকে কোন ছবি ব্যবহার করতে চান তাহলে Google এ ফ্রি স্টক Photo রয়েছে তা ব্যবহার করুন এবং ব্যবহার এর পূর্বে তা সঠিক নিয়মে কাস্টমাইজ করে ব্যবহার করার চেষ্টা করুন।

ফ্রি স্টক Photo আপনি সরাসরি ব্যবহার করতে পারেন তাতে কোন সমস্যা হবে না।

শেষ কথাঃ

মোটামুটি এই গুরুত্বপূর্ণ টপিকস গুলো অনুসরণ করলে Google Adsense Approval পেতে আপনাকে তেমন সমস্যা পেতে হবে না।

আমাদের অন্যান্য পোস্ট: কম খরচে কথা বলা, কি-বোর্ড শর্টকার্ট, কম্পিউটারের  Speed  বাড়ানো

No comments found.

Leave a Reply

Your email address will not be published.